বিএসএমএমইউতে স্থানান্তর

হাসান আজিজুল হকের সুচিকিৎসার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

হাসান আজিজুল হক
কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক

কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হককে চিকিৎসার জন্য রাজশাহী থেকে ঢাকায় আনা হয়েছে। আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজশাহীর হযরত শাহমখদুম (র.) বিমানবন্দর থেকে একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাঁকে ঢাকায় নেওয়া হয়। এরপর জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছিল।

সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় জনপ্রিয় এই কথাসাহিত্যিককে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) স্থানান্তর করা হয়।

রাজশাহী-৬ (চারঘাট ও বাঘা) আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  তিনি জানান, ‘হাসান আজিজুল হক স্যারকে আরও উন্নত এবং সমন্বিত চিকিৎসার জন্য জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউট থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সার্বিক সহায়তা করছে।’

ঢাকায় নেওয়ার পর কথাশিল্পী হাসান আজিজুল হকের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে রিপোর্ট এসেছে নেগেটিভ।

এর আগে সকালে নগরীর চৌদ্দপাই এলাকার বিশ্ববিদ্যালয় হাউজিং সোসাইটির (বিহাস) বাসা থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসান আজিজুল হককে বিমানবন্দরে নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: আসিফ নজরুলকে হুমকির নিন্দা ৬৪ নাগরিকের

হাসান আজিজুল হকের বয়স ৮২ পেরিয়েছে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে একটানা ৩১ বছর শিক্ষকতার পর ২০০৪ সালে তিনি অবসর নেন। এরপর বিহাসে নিজের ‘উজান’ নামের বাসায় থাকেন। গত ১৬ আগস্ট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে ছেলে ইমতিয়াজ হাসান জানান, গত এক মাস ধরেই তাঁর বাবা ‘ভীষণ’ অসুস্থ। এরপর তাঁর অসুস্থতার খবর জানাজানি হয়।

পরে গত বৃহস্পতিবার ফেসবুকে স্টাট্যাস দিয়ে হাসান আজিজুল হকের চিকিৎসার ব্যাপারে সবার সহযোগিতা চান সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। এর পরদিন শুক্রবার তিনি শুভানুধ্যায়ীদের নিয়ে অনলাইনে একটি সভাও করেন। পরে রাতে সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন তাঁকে দেখতে যান। আজ সকালে হেলিকপ্টারে হাসান আজিজুল হককে ঢাকায় আনা হয়।


মন্তব্য

x