বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস ‍শুরুর খবরটি গুজব

সশরীরে ক্লাস হওয়ার খবরের সঙ্গে এ ছবিও প্রচার করা হয়েছে
সশরীরে ক্লাস হওয়ার খবরের সঙ্গে এ ছবিও প্রচার করা হয়েছে  © ফেসবুক

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) সশরীরে ক্লাস শুরু হওয়ার যে খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে তা সঠিক নয় বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক বৃহস্পতিবার রাতে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেছেন, সশরীরে ক্লাস শুরুর কোন তথ্য প্রশাসনের কাছে নেই।

এর আগে, এদিন দুপুর থেকে হাবিপ্রবিতে সশরীরে ক্লাস শুরু হয়েছে- এ সংক্রান্ত একটি খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সোর্স ব্যবহার করা হয়েছে।

পোস্টে বলা হয়েছে, ‘‘সশরীরে ক্লাস। হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস হচ্ছে আজ। এই প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মাঝে সবার আগে ক্লাস নিলো এবং ২১ তারিখ থেকে পরীক্ষা হবে বলে ঘোষণা করেছে হাবিপ্রবি প্রশাসন।’’

এ বিষয়ে বশেমুরবিপ্রবি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইয়ামিনুল হাসান আলিফ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজ সংশ্লিষ্ট কিছু পেজ/গ্রুপে প্রথম এ খবরটি প্রচার করা হয়। পরে এটি সেখানে থেকে নিয়ে আমাদের সংগঠনের পেজেও প্রচার করা হয়েছিল। যখন ওইসব পেজ/গ্রুপ থেকে খবরটি সরিয়ে দেয়া হয়; তখন আমাদের পেজ থেকেও এটি মুছে দেয়া হয়েছে। কিন্তু শিক্ষার্থীরা কেন শুধুমাত্র আমাদের সংগঠনের নাম ব্যবহার করে খবরটি প্রচার করছে- এ সম্পর্কে আমাদের কিছু জানা নেই।

সশরীরে ক্লাস শুরুর খবরের সঙ্গে এ ছবিটিও প্রচার করা হয়েছে

এদিকে, হাবিপ্রবিতে সশরীরে ক্লাস শুরুর খবরটি ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে শিক্ষার্থীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্থ তালুকদার নামে এক শিক্ষার্থী শ্রেণীকক্ষে শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাস হচ্ছে এমন তিনটি ছবি যোগ করে লিখেছেন, করোনাকালে প্রথম ক্লাস। হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস হচ্ছে। এই প্রথম সবার আগে ক্লাস নিলো এবং ২১ তারিখ থেকে পরীক্ষা হবে। এই খবরটি কি সত্য?

এ পোস্টে কয়েকশ শিক্ষার্থী প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। এসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়াই বেশি ছিল। কেউ বলছেন ক্লাস হয়েছে, আবার কেউ বলছেন ক্লাস না পরীক্ষার সিদ্ধান্ত ছিল। তবে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী মিথ্যা বলেই দাবি করেছেন। সায়েদ ইব্রাহীম নামে একজনে লিখেছেন, ‘‘১০ জুন থেকে পর্যায়ক্রমে পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে ক্লাসের বিষয়ে জানিনা।’’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে জানান, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে কোন ক্লাস হয়েছে কি না তা আমার জানা নেই। আমাকে কেউ এ বিষয়ে জানায়নি। আমার কাছে এ ধরনের কোন তথ্য নেই।

তবে এর আগে, গত ৩১ মে (সোমবার) বিশ্ববিদ্যালয়ের সব অনুষদের ডিনদের সঙ্গে সভা শেষে ১০ জুন থেকে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায় হাবিপ্রবি প্রশাসন।

এ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইতিমধ্যে বিভিন্ন অনুষদ পরীক্ষার রুটিন ও তারিখ প্রকাশ করতে শুরু করেছে। সশরীরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের পরীক্ষা ১৬ জুন, ফিশারিজ অনুষদ ১৭ জুন, ডিভিএম ১৫ জুন, ইঞ্জিনিয়ারিং ২১ জুন পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য অনুষদগুলো সশরীরের পরীক্ষার তারিখ জানাবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানিয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ