বাংলাদেশে ফ্যাক্টচেকিং কার্যক্রম বাড়াল ফেসবুক

ফেসবুক লোগো
এএফপি ফ্যাক্ট চেক এবং ফ্যাক্ট ওয়াচের লোগো  © ফাইল ফটো

বাংলাদেশে তৃতীয় পক্ষের মাধ্যমে ফ্যাক্টচেকিং কার্যক্রম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। বাংলাদেশে ভুল তথ্য ছড়ানো ঠেকাতে সংবাদ সংস্থা এএফপি ও ফ্যাক্ট ওয়াচকে নিযুক্ত করল ফেসবুক।

ফ্যাক্টচেকিংয়ে আগে থেকেই ফেসবুকের আন্তর্জাতিক অংশীদার হিসেবে কাজ করছে এএফপি। আর ফ্যাক্ট ওয়াচ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আটর্সের (ইউল্যাব) প্রতিষ্ঠান।

যুক্তরাষ্ট্রের পয়েন্টার ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠিত নিরপেক্ষ ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাক্ট চেকিং নেটওয়ার্কের (আইএফসিএন) সদস্য এএফপি ও বাংলাদেশের ফ্যাক্ট ওয়াচ। তারা এখন থেকে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কোনো পোস্ট, ছবি বা ভিডিও নিয়ে সংশয় দেখা দিলে তা যাচাই করবে।

আরও পড়ুন: ঢাবি ছাত্র হাফিজুরের মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্তসহ ৪ দাবি

অন্যদিকে ভারতীয় মিডিয়া প্রতিষ্ঠান বুম লাইভের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বুম বাংলাদেশ গত বছর থেকেই ফেসবুকের হয়ে তথ্য যাচাইয়ের কাজে নিযুক্ত রয়েছে।

এসব তৃতীয় পক্ষ প্রতিষ্ঠান কখনো কোনো পোস্টকে ভুয়া, সত্যমিথ্যার মিশ্রণ বা আংশিক মিথ্যা রেটিং দিলে ফেসবুকের নিউজ ফিডে সেসব পোস্ট কম মানুষের কাছে যাবে। ইনস্টাগ্রামের ক্ষেত্রেও সক্রিয় থাকবে এই তিন প্রতিষ্ঠান।

ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রামে বারবার ভুয়া খবর ছড়ানো পেজগুলোর মনেটাইজেশন ক্ষমতা কমিয়ে দেওয়া হবে অথবা বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া হবে।

২০১৬ সালে প্রথম ফ্যাক্টচেকিং শুরু করে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ৬০টি ভাষায় ৮০টি প্রতিষ্ঠান এই কাজে ফেসবুকে অংশীদার হিসেবে নিযুক্ত রয়েছে।

এ ছাড়া গত সপ্তাহে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সঙ্গে যৌথভাবে ডিজিটাল জার্নালিজম কোর্স চালু করে ফেসবুক।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ