ব্লগার রীতিকাকে পাঁচতলা থেকে ফেলে দিলেন সাবেক স্বামী

রিতিকা সিং
নারী ব্লগার রিতিকা সিং  © আনন্দবাজার

নারী ব্লগার রিতিকা সিংকে পাঁচতলা থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রাক্তন স্বামী ও আরও দু’জনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রিতিকা স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর ভারতের আগ্রার তাজগঞ্জে একটি ফ্ল্যাটে লিভ ইন সঙ্গী বিপুলের সঙ্গে থাকতেন। তাঁর সঙ্গে ফেসবুকে পরিচয় হয়েছিল রিতিকার। 

২০১৪ সালে উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের বাসিন্দা রিতিকার বিয়ে হয় ফিরোজাবাদের আকাশ গৌতমের সঙ্গে। তিন বছর পর বিপুলের সঙ্গে ফেসবুকে আলাপ হয় তাঁর। ২০১৮ সালে স্বামী আকাশের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর বিপুলের সঙ্গে লিভ ইন সম্পর্কে থাকতেন।

আড়াই মাস আগে ১৩ হাজার টাকা ভাড়ায় তাজগঞ্জে ফ্ল্যাট নেন তারা। রিতিকা ইনফ্লুয়েন্সার ছিলেন। ইনস্টাগ্রামে তাঁর অনুসারী ৪৪ হাজার। মূলত ফ্যাশন, খাবার এবং ভ্রমণ বিষয়ে লেখালেখি করতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার দুই নারীকে নিয়ে প্রাক্তন স্বামী আকাশ গৌতম রিতিকার ফ্ল্যাটে আসেন। কারও যাতে সন্দেহ না হয়, সে জন্য প্রথমে দুই নারীকে অ্যাপার্টমেন্টে ঢুকতে বলেন। নিরাপত্তারক্ষী বাধা দিলে আকাশ আসেন এবং দুই নারীকে ভিতরে ঢোকানোর ব্যবস্থা করে দেন।

দুই নারী অ্যাপার্টমেন্টের খাতায় ভুল নাম লেখেন। রিতিকার ফ্ল্যাটের নম্বর ৪০৪। কিন্তু তারা লেখেন ৬০১ নম্বর ফ্ল্যাটে যাবেন। তারা যখন রিতিকার ফ্ল্যাটে যান, বিপুলও ফ্ল্যাটেই ছিলেন। তার অভিযোগ, আকাশ ও দুই নারীলা ঘরে ঢুকেই তাদের মারতে শুরু করেন। পরে বিপুলের হাত বেঁধে বাথরুমের মধ্যে আটকে দেন।

আরো পড়ুন: প্রেমিকার কাছে হিরো হতে ব্যাংক থেকে ৭ কোটি টাকা চুরি!

তিনি বাথরুমের জানলা ভেঙে প্রতিবেশীদের ডাকতে থাকেন। সেই আওয়াজ শুনে পাশের ফ্ল্যাটের লোকেরা ছুটে আসেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, পরে ওপর ভারী কিছু পড়ার আওয়াজ ও আর্তনাদ শুনতে পেয়েছিলেন। নিরাপত্তারক্ষী অ্যাপার্টমেন্টের পেছনে গিয়ে দেখেন রিতিকা মুখ থুবড়ে পড়ে আছেন। রক্তে ভেসে যাচ্ছে, তার হাত-পা বাঁধা ছিল।

আগরার এসএসপি সুধীর কুমার সিংহ বলেন, তদন্ত করে জানা যায়, তিনি এক জনের সঙ্গে ফ্ল্যাটে থাকতেন। তার প্রাক্তন স্বামী পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আসেন। তাঁদের মধ্যে ঝামেলা হলে হাত-পা বেঁধে ব্যালকনি থেকে ছুড়ে ফেলা হয়। মাথায় গুরুতর চোট পান তিনি। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।


x