পোপ ফ্রান্সিস

মিথ্যা সংবাদ ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো মানবাধিকার লঙ্ঘনের শামিল

অন্য প্রাঙ্গণ
খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস।  © সংগৃহীত

মহামারি কোভিড-১৯ ও ভ্যাকসিন নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানোকে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শামিল বলে মন্তব্য করেছেন পোপ ফ্রান্সিস। শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) ক্যাথলিকফ্যাক্টচেকিংডটকম নামক একটি ক্যাথলিক মিডিয়া প্রতিষ্ঠানের ‍উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সদস্যদের উদ্দেশ্যে দেওয়া এক বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। খবর যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের।

আরও পড়ুন: আত্মহত্যায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের

অনুষ্ঠানে পোপ বলেন, মিথ্যা সংবাদ নয় বরং বৈজ্ঞানিক তথ্যের ভিত্তিতে সঠিকভাবে তথ্য বোঝা ও  জানানো মানবাধিকারের অন্তর্ভুক্ত। যারা এর ভুক্তভোগী বিশেষ করে সুবিধাবঞ্চিত ও দুর্বলদের জন্য সবার আগে সঠিক তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে।

৮৫ বছর বয়সী এ ধর্মীয় নেতা তথ্যমারী'র (ইনফোডেমিক) সমালোচনা করেন। এসময় তিনি মিথ্যা সংবাদে বিশ্বাসকারীদের একঘরে না করে তাদের উপর বৈজ্ঞানিক সত্য প্রতিষ্ঠা করারও আহ্বান জানান।

পোপ আরও বলেন, 'মিথ্যা সংবাদকে সব সময় প্রত্যাখান করতে হবে। অবশ্য, ব্যক্তি বিশেষের প্রতি সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখতে হবে। কারণ তারা প্রায়শ পুরোপুরি সচেতন না হয়ে বা দায় না নিয়েই তা বিশ্বাস করেন।'

আরও পড়ুন: একাদশে ভর্তির ফল রাতে

এবার দ্বিতীয়বারের মতো কোভিড-১৯ ও ভ্যাকসিন নিয়ে তিনি কথা বললেন। এর প্রায় তিন সপ্তাহ আগে কোভিড-১৯ নিয়ে আর্দশের জায়গা থেকে 'ভিত্তিহীন' সংবাদ ছড়ানোর নিন্দা জানানো স্বাস্থ্য সেবার জন্য নৈতিক দায়িত্ব বলে অভিহিত করেন পোপ।

এদিকে কিছু মিডিয়া কার্লো মারিয়া ভিগান এর মতো কিছু ডানপন্থী ক্যাথলিক আর্চবিশপ যারা পোপের কড়া সমালোচক তাদের নিয়মিত আমন্ত্রণ জানান। ভিগান পোপের পদত্যাগ দাবি করার কারণে গত তিন বছর ধরে আত্মগোপনে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, ভিগান ডানপন্থী ক্যাথলিক আর্চবিশপ যিনি মহামারীর অস্তিত্ব অস্বীকার করে এটিকে শয়তানের কাজ হিসেবে অভিহিত করেছেন। এর আগে ভিগান এই মাসে এক চিঠিতে অনুসারীদের জানিয়েছেন, বৈশ্বিক ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে খ্রিষ্টানদের মুছে ফেলার জন্য ‘কোভিড-১৯’ ল্যাবে তৈরি করা হয়েছে।


x

সর্বশেষ সংবাদ