কোন কিছু আমাকে থামাতে পারবে না: প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ
ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ  © ফাইল ছবি

ভিড়ের মধ্যে আচমকাই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে চড় মেরে বসেছেন এক ব্যক্তি। মঙ্গলবার ম্যাক্রোঁ দক্ষিণপূর্ব ফ্রান্সের দ্রোম অঞ্চল সফরে থাকার সময় ঘটনাটি ঘটে। বিষয়টি নিয়ে তাৎক্ষণিক তেমন কোন প্রতিক্রিয়া দেখা না গেলেও একদিন পর মুখ খুলেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট।

বুধবার (০৯ জুন) বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে জানান, তিনি নিজের সুরক্ষা নিয়ে ভয় পাচ্ছেন না। আঘাতের পরেও জনসাধারণের সাথে হাত মেলানো অব্যাহত রেখেছিলেন তিনি। তিনি এগিয়ে যাবেনই এবং কোন কিছু তাকে থামাতে পারবে না।

গণতন্ত্রে ঘৃণা আর সহিংসতার স্থান নেই। তিনি বলেন, গণতন্ত্রে ক্ষোভ প্রকাশের সুযোগ আছে। আমি বরাবরই সাধারণ মানুষের কাছাকাছি আসাটা গুরুত্বপূর্ণ মনে করি। অনেক সময় তারা ক্ষোভ-হতাশা প্রকাশ করে।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার এক ভিডিওতে দেখা যায়, ফ্রান্সের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ভ্যালেন্স শহরের বাইরের টেইন-ই হারমিটেট এলাকায় সরকারি সফরের সময় ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে হাত মেলাতে যান ম্যাক্রোঁ। এসময় ব্যারিকেডের অপরপাশে দাঁড়িয়ে থাকা ওই যুবক ম্যাক্রোঁর গালে সজোরে থাপ্পড় মারেন। তারপর নিরাপত্তা বাহিনী ম্যাক্রোঁকে দ্রুত সরিয়ে নেন।

ম্যাক্রোঁ বলেন, আমার কাজের ক্ষেত্রে কোন কোন সময় সফল হই আবার কোন সময় ভুল করি। ভুল নিয়ে প্রশ্ন তুললে জবাবও দেই। তবে নির্বুদ্ধিতার সাথে সহিংসতায় যুক্ত হলে তা গ্রহণযোগ্য নয়।

গ্রেপ্তার ২

ভিড়ের মধ্যে আচমকাই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁকে চড় মেরে বসেছেন এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বিএফএম টিভি এবং আরএমসি রেডিও দুইজন গ্রেপ্তার হওয়ার খবর জানিয়েছে।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী জ্যঁ ক্যাসটেক্স এ ঘটনাকে গণতন্ত্রের উপর আক্রমণ বলে বর্ণনা করেছেন। এলিসি প্যালেস থেকে বলা হয়, সেখানে ম্যাক্রোঁর উপর হামলার চেষ্টা করা হয়েছিল। এ বিষয়ে বিস্তারিত আর কোনো তথ্য দেয়া হয়নি।


মন্তব্য