ফ্রান্সে বিতর্কিত কার্টুন, এবার মুখ খুলল সৌদি সরকার

বাদশাহ সালমান বিন আবদুল-আজিজ আল সউদ
সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল-আজিজ আল সউদ  © বিবিসি

মহানবীকে (সা.) নিয়ে আপত্তিজনক কার্টুন ও সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে ইসলামকে জড়ানোর উদ্যোগের নিন্দা করেছে সৌদি আরব। আজ মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তার এ সংক্রান্ত বিবৃতি প্রকাশ করেছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। তবে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ডাক দেয়নি সৌদি সরকার।

এতে বলা হয়েছে, বাক স্বাধীনতা ও এর সংস্কৃতি শ্রদ্ধা, সহনশীলতা এবং শান্তির ভিত্তিতে হওয়া উচিত। ঘৃণা, সহিংসতা এবং চরমপন্থার উৎপত্তি ও সহাবস্থানবিরোধী চর্চা এটি প্রত্যাখ্যান করে।

ফ্রান্সে এক শিক্ষক ক্লাসে মহানবী (সা.)-এর কার্টুন দেখানোর কারণে হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় দেশটির প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রো ব্যঙ্গচিত্র দেখানো বন্ধ হবে না বলে জানান। তার এমন মন্তব্যে মুসলিমদের মধ্যে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। ইসলামে মহানবী (সাঃ) ও আল্লাহর ছবি প্রদর্শন নিষিদ্ধ। এ ধরনের কিছু করা মারাত্মক অপরাধ।

ওই মন্তব্যের পর ম্যাক্রোর তীব্র সমালোচনা করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাকও দেন এরদোয়ান। এর আগে জর্ডান, কাতার ও কুয়েতের সুপার শপ থেকে ফ্রান্সের পণ্য সরিয়ে নেওয়া হয়। এমনকি কুয়েতে খুচরা পণ্য বিক্রেতাদের প্রধান সমিতি ফরাসি পণ্য বর্জনের আদেশ দিয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ