বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণে আলাদাভাবে ‘আন্তর্জাতিক’ বলতে হবে কেন?

বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণে আলাদাভাবে ‘আন্তর্জাতিক’ বলতে হবে কেন?
  © টিডিসি ফটো

বঙ্গবন্ধুর নামে খালি নানা প্রতিষ্ঠান খুলেই যাচ্ছে। কিন্তু কোন একটি প্রতিষ্ঠানও আজ পর্যন্ত গড়ে উঠেনি যেটি বঙ্গবন্ধুর উচ্চতার সাথে যায়। নামক ওয়াস্তে করে চাটার দল কেবল ফায়দা লুটতেই ব্যস্ত। দেখুন বঙ্গবন্ধুর নামে পাঠাগারের কি অবস্থা। একই কথা খাটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে। একেতো বিশ্ববিদ্যালয় নামক কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কেউ চুরি করার কথা কল্পনাও করতে পারেনা। সেখানে স্বয়ং বঙ্গবন্ধুর নামে বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থানের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয়বারের মত কম্পিউটার চুরি হয়েছে।

আজকে আবার দেখলাম সৈয়দপুরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। প্রথমত বিশ্ববিদ্যালয় সেটির সাথে আবার আন্তর্জাতিক করেছে। কেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঝেইতো আন্তর্জাতিকতা অন্তর্নিহিত। এখানে আবার আলাদা করে "আন্তর্জাতিক" বলতে হবে কেন? কারা এইসব নাম রাখে? যারা বিশ্ববিদ্যালয় নামের সাথে "আন্তর্জাতিক" শব্দটি যুক্ত করেছে তাদের বিশ্ববিদ্যালয় মানে কি সেই সর্ম্পকে ন্যূনতম ধারণাই নেই। কিন্তু ফায়দা লুটার ধারণা শতভাগ আছে।

আমি নিশ্চিত এটি আরেকটি নামকাওয়াস্তে প্রতিষ্ঠান হতে যাচ্ছে। আল্লার ওয়াস্তে এইসব বাদ দিন। পারলে বঙ্গবন্ধুর নামে এমন একটি প্রতিষ্ঠান করুন যেন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে যায়। কিন্তু উদ্দেশ্য যদি কেবল বঙ্গবন্ধুকে ব্যবহার করা তাহলে বলার কিছু নাই।

লেখক: অধ্যাপক, পদার্থবিজ্ঞান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়


মন্তব্য