ভি-রোল ফরম না পাঠানো প্রার্থীদের সুপারিশপত্র দেবে না এনটিআরসিএ

পুলিশ ভেরিফিকেশন
বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ  © ফাইল ছবি

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের প্রাথমিক সুপারিশপ্রাপ্ত ৩৮ হাজার ২৮৩ জনের পুলিশ ভেরিফিকেশন চলমান রেখেই চূড়ান্ত সুপারিশপত্র দিতে যাচ্ছে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। তবে যারা পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করে পাঠায়নি তাদের সুপারশিপত্র দেয়া হবে না।

এনটিআরসিএ সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষক নিয়োগের প্রাথমিক সুপারিশ প্রাপ্তদের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৩২ হাজার ২৮৩ জন পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করে পাঠায়। ভি রোল ফরম না পাঠানো ৬ হাজার প্রার্থীকে পুনরায় ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করে পাঠানোর সুযোগ দেয় এনটিআরসি।

দ্বিতীয় ধাপে এক হাজার ৭৪ জন প্রার্থী ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করে এনটিআরসিএতে পাঠিয়েছে। তবে প্রায় ৫ হাজার প্রার্থী ভি রোল ফরম পূরণ করে পাঠায়নি। ফলে এই ৫ হাজার প্রার্থী নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র পাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: এনটিআরসিএর ভুয়া সুপারিশপত্র ফেসবুকে

বিষয়টি নিশ্চিত করে এনটিআরসিএ সদস্য (পরীক্ষা মূল্যায়ন ও প্রত্যয়ন) এ বি এম শওকত ইকবাল শাহী দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, যারা ভি রোল ফরম পূরণ করে পাঠায়নি তাদের চূড়ান্ত সুপারিশপত্র দেয়া হবে না। আমরা তাদের দুইবার সুযোগ দিয়েছিলাম। তবে সেটি তারা কাজে লাগায়নি।

এর আগে গত সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বেসরকারি মাধ্যমিক-২ শাখা থেকে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রাথমিক সুপারিশপ্রাপ্তদের ভেরিফিকেশন চলমান রেখেই চূড়ান্ত সুপারিশপত্র দেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয়। ওই বিজ্ঞপ্তিতে তিনটি শর্তের মাধ্যমে সুপারিশপত্র দেয়ার কথা জানানো হয়।

শর্তগুলো হলো-
* নিয়োগ সুপারিশপ্রাপ্ত কোনো শিক্ষকের ব্যাপারে সসংশ্লিষ্ট এজেন্সি কর্তৃক ভেরিফিকেশনে কোনো বিরূপ মন্তব্য/আপত্তি উত্থাপিত হলে অবিলম্বে উক্ত সুপারিশপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে এবং সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে চাকরি থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হবে।

আরও পড়ুন: আগামী সপ্তাহে চূড়ান্ত সুপারিশপত্র দিতে চায় এনটিআরসিএ

*প্রার্থীর পুলিশ ভেরিফিকেশনে বিরূপ মন্তব্য পাওয়া গেলে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে।

*বিরূপ মন্তব্যসম্পন্ন শিক্ষককে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ও প্রার্থীকে জানাতে হবে।

তথ্যমতে, গত বছরের ৩০ মার্চ বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৪ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে এনটিআরসিএ। বিভিন্ন নিবন্ধনের রিটকারীদের জন্য ২ হাজার ২০০টি পদ সংরক্ষণ করে বাকি পদগুলোতে নিয়োগের উদ্যোগ নেয়া হয়।

আবেদন না পাওয়ায় এবং মহিলা কোটায় যোগ্য প্রার্থী না থাকায় ১৫ হাজাত ৩২৫টি পদ বাদ রেখে ৩৮ হাজার ২৮৬ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। সুপারিশ প্রাপ্তদের মধ্যে ৬ হাজার প্রার্থী ভেরিফিকেশন ফরম পূরণ করে না পাঠানোয় ৩২ হাজার ২৮৩ জনের পুলিশ ভেরিফিকেশন করা হচ্ছে।


x

সর্বশেষ সংবাদ