১৬তম নিবন্ধন: ভুল সংশোধন সার্টিফিকেট পাওয়ার পর

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন
বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ  © ফাইল ফটো

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনে চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নাম-ঠিকানাসহ ভুল হওয়া নানা বিষয়ের তথ্য সংশোধন সার্টিফিকেট পাওয়ার পর করতে পারবেন। সার্টিফিকেট পাওয়ার আগে ভুল সংশোধনের সুযোগ পাচ্ছেন না প্রার্থীরা।

বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) বলছে, মৌখিক পরীক্ষার সময় অনেক প্রার্থীর ছোট ছোট কিছু ভুল ছিল। কারো নামের বানান ভুল, আবার কারো বাবা-মার নামের বানান ভুল এসেছে। এই ভুলগুলো প্রার্থীরা সার্টিফিকেট পাওয়ার পর সংশোধন করতে পারবেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এনটিআরসিএ’র পরীক্ষা মূল্যায়ন ও প্রত্যয়ন শাখার এক কর্মকর্তা দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে জানান, ১৬তম নিবন্ধনের ফল প্রকাশের পর থেকেই আমাদের কাছে ভুল সংশোধনের আর্জি আসছে। তবে আমরা এখন ভুল সংশোধনের সুযোগ দিতে পারছি না।

ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, প্রার্থীরা যখন তাদের সার্টিফিকেট পাবে, তখন সেটি হবে ‘হার্ড কপি’। ‘হার্ড কপি’ না পাওয়া পর্যন্ত আমরা ভুল সংশোধন করবো কীভাবে। তাই চাইলেও এখন ভুল সংশোধনের সুযোগ দেওয়া সম্ভব হবে না। সার্টিফিকেট পাওয়ার পর প্রার্থীরা আবেদন করলে আমরা ভুল সংশোধন করে দেব।

এর আগে গত রবিবার ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের চূড়ান্ত ফল প্রকাশিত হয়। সর্বমোট ১৮ হাজার ৫৫০ জন প্রার্থী ষোড়শ শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন। এর মধ্যে স্কুল-২ পর্যায়ে ৯৯৬ জন, স্কুল পর্যায়ে ১৪ হাজার ৪৬ জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৩ হাজার ৫০৮ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন।

তথ্যমতে, গত বছরের ১১ নভেম্বর ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। লিখিত পরীক্ষায় মোট ১ লাখ ৫৪ হাজার ৬৬৫ জন অংশ নেন। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হন ২২ হাজার ৩৯৮ প্রার্থী। এতে স্কুল-২ পর্যায়ে ১ হাজার ২০৩ জন, স্কুল পর্যায়ে ১৭ হাজার ১৪০ জন এবং কলেজ পর্যায়ে ৪ হাজার ৫৫ জনসহ মোট ২২ হাজার ৩৯৮ জন উত্তীর্ণ হয়।

১৬তম শিক্ষক নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় ২০১৯ সালের ২৩ মে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হয় ওই বছরেরই ৩০ আগস্ট, ফল প্রকাশ করা হয় ৩০ সেপ্টেম্বর। লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় ১৫ ও ১৬ নভেম্বর। সর্বোচ্চ দুই মাসের মধ্যে লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশের কথা থাকলেও তা প্রকাশ করা হয় এক বছর পর ২০২০ সালে ১১ অক্টোবর।


মন্তব্য

x