ইসলাম শিক্ষা আছে, ফেসবুকে প্রমাণ দিলেন উপমন্ত্রী

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল
মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল  © ফাইল ছবি

দেশের শিক্ষা আইনে পাঠ্যক্রম থেকে ইসলাম শিক্ষা বাদ দেওয়ার যে অভিযোগ করা হচ্ছে সেটি উড়িয়ে দিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি বলেছেন, ইসলাম শিক্ষা পাঠ্যক্রমে আবশ্যিক আছে এবং থাকবে। যেমনটি আছে অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের জন্য। অপপ্রচারে, গুজবে কান দেবেন না

সোমবার (০৪ জুলাই) রাতে ইসলাম শিক্ষা বইয়ের বেশ কয়েকটি পাতার ছবি যুক্ত করে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছেন তিনি।

শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, সকল কারিকুলাম, সাধারণ শিক্ষা, মাদ্রাসা শিক্ষা, কারিগরি শিক্ষা, সর্বত্র ধর্ম শিক্ষা বাধ্যতামূলক আছে এবং থাকবে।

এর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেশের শিক্ষা পাঠ্যক্রম থেকে ইসলাম শিক্ষা বাদ দেওয়া হয়েছে অভিযোগ সংবলিত বেশকিছু পোস্ট ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনও এ বিষয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রী সবার জন্য উচ্চ শিক্ষা উন্মুক্ত করেছেন: নওফেল

নওফেল বলেন, মুসলমানদের জন্য ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, হিন্দু, বৌদ্ধ, ও খ্রিস্টানদের জন্য ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, আবশ্যিক হবে। এসব বিষয়ের উপর মূল্যায়ন ও পরীক্ষাও থাকবে। মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা ধর্মীয় শিক্ষা আরো সম্প্রসারিত আকারে গ্রহণ করবে। অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না।

এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, আমাদের নতুন শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে চরম অসত্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। বলা হচ্ছে, ধর্ম শিক্ষা বাদ দেয়া হয়েছে, যা একেবারে ভুল তথ্য। ধর্ম শিক্ষা চিরদিনই আবশ্যিক, এখনও আছে এবং ধর্ম শিক্ষাকে বাদ দেয়ার কোনো পরিকল্পনা সরকারের কখনো ছিল না। এখনও নেই।


x