ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষক বদলি

ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে শিক্ষক বদলি
অভিযুক্ত শিক্ষক  © টিডিসি ফটো

ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে আন্দোলনের মুখে বগুড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের চিফ ইনস্ট্রাক্টর হাফিজুর রহমানকে তাৎক্ষণিক বদলি (স্ট্যান্ড রিলিজ) করা হয়েছে। আগামী ৫ জুনের মধ্য তাকে বদলিকৃত কর্মস্থল পটুয়াখালী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে যোগদান করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের উপসচিব রহিমা আক্তার স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বদলির আদেশ জারি করা হয়।

বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বগুড়া পলিটেকনিকের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আবু সাইম জাহান।

তিনি জানান, সম্প্রতি পাওয়ার বিভাগের এক ছাত্রী হাফিজুরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠান তদন্ত করে প্রাথমিক সত্যতা পায়। সেই প্রতিবেদন কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগে পাঠানো হলে, তাকে বদলির নির্দেশ দেয়া হয়।

সম্প্রতি পাওয়ার বিভাগের এক শিক্ষার্থী চিফ ইন্সট্রাক্টর হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির করার লিখিত অভিযোগ করেন। এতে ওই শিক্ষার্থী উল্লেখ করেন, ক্লাসে তার হিজাব খুলে মুখ দেখাতে বাধ্য করেন। এ ছাড়া ক্লাসে পর্ন ভিডিও দেখার গল্প তুলতেন।

আরও পড়ুন: বিসিএস পরীক্ষা দেয়ার আগেই স্ট্রোক, ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

শিক্ষার্থীর অভিযোগ, তৃতীয় সেমিস্টার পরীক্ষায় একটি বিষয়ে তাকে রেফার্ড করেন হাফিজুর রহমান। রেফার্ড বিষয়ের জন্য ১৫০০ টাকা নেন। এরপর আবার চতুর্থ সেমিস্টারে ফেল করার হুমকি দেন ওই শিক্ষক। পরে শিক্ষকের কাছে গেলে আধাঘণ্টার জন্য বাসায় আসতে বলেন ওই ছাত্রীকে। এসব বিষয় নিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষার্থীরা শিক্ষক হাফিজুরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন করেন।

বদলির বিষয়টি স্বীকার করেছেন চিফ ইন্সট্রাক্টর হাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, পটুয়াখালী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে বদলির আদেশ হয়েছে।

অভিযুক্ত চিফ ইনস্ট্রাক্টর হাফিজুর রহমান বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। আমি ক্লাস নিই প্রথম শিফটে, আর আন্দোলন করছে দ্বিতীয় শিফটের শিক্ষার্থীরা। কিছু শিক্ষক তাদের ইন্ধন দিচ্ছে। আমার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ ভিত্তিহীন।


x

সর্বশেষ সংবাদ