বাবার মরদেহ বাড়িতে রেখে পরীক্ষা দিল ছেলে

এইচএসসি
পরীক্ষার হলে মেরাজ  © সংগৃহীত

বাবার হাত ধরেই প্রথম স্কুলযাত্রা মেরাজের। প্রতিটি পরীক্ষার আগের রাতে তার থেকে বাবার দুশ্চিন্তাই ছিল বেশি। অথচ আজ উচ্চমাধ্যমিকের চৌকাঠ পেরোতে বাবাকে ছাড়াই পরীক্ষার হলে সে। বাবার মৃত্যুতে এক হাতে চোখের পানি মুছে অন্য হাতে পরীক্ষার খাতায় লিখে চলেছেন।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সাইফুর রহমান সরকারি কলেজ পরীক্ষা কেন্দ্রে এমন হৃদয়বিদারক মুহূর্তের সৃষ্টি হয়।

মেরাজ হকের (১৭) বাড়ি উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নে। তিনি ফুলবাড়ি উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের সদ্য প্রয়াত শরিফুল হক মিল্টনের (৪৭) ছেলে। মেরাজ হক ফুলবাড়ী ডিগ্রি কলেজের বিএম শাখার এইচএসসি পরীক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মেরাজ হকের বাবা বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) রাত ৩টার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। রাত পোহালেই পরীক্ষা। একদিকে দুশ্চিন্তা, অন্যদিকে বাবাকে হারানো শোকে ভেঙে পড়েন মেরাজ হক। পরে স্বজনদের সান্ত্বনায় কাঁদতে কাঁদতে পরীক্ষা দিতে আসেন মেরাজ। পরীক্ষা শেষে বেলা আড়াইটার দিকে তার বাবার লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

সাইফুর রহমান সরকারি কলেজর অধ্যক্ষ ও কেন্দ্রসচিব মো. রফিকুল ইসলাম জানান, পরীক্ষার্থী মেরাজ হকের বাবার মৃত্যুর বিষয়টি আমরা শুনেছি। তবে তাকে বিশেষ কোনো সুবিধা দেওয়া হয়নি। তবে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আমরা তাকে উৎসাহ দিয়েছি। সে সবার সঙ্গে স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষা দিয়েছে।


মন্তব্য

x

সর্বশেষ সংবাদ