একই দিনে একজনকে ৩ বুথে তিনবার টিকা ‘গুজব’

করোনা ভাইরাস
প্রবাসী ওমর ফারুক  © সংগৃহীত

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) টিকাদান কেন্দ্রে সৌদি প্রবাসী এক ব্যক্তিকে একই দিনে তিন ডোজ টিকা দেওয়ার যে খবর বের হয়েছে তা মিথ্যা ও গুজব বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ওমর ফারুক নামে ওই ‘অভিযোগকারী’ টিকাগ্রহণকারী ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার চেষ্টার পাশাপাশি এই ‘অপপ্রচারের’ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলছে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) ওমর ফারুক একটি বেসরকারি টেলিভিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানান, এই টিকাদান কেন্দ্রের তিনটি বুথ থেকে তাকে তিনবার টিকা দেওয়া হয়েছে। এরপর ওই ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বলেও গণমাধ্যমে খবর আসে। পরে এই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

এ নিয়ে দেশের মূল ধারার সংবাদ মাধ্যমের অনলাইন ভার্সনেও প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। দৈনিক যুগান্তর তাদের অনলাইন ভার্সনে ‘একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নিয়ে পর্যবেক্ষণে সৌদি প্রবাসী’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলছে, “সৌদি আরবে যাওয়ার আগে করোনার টিকা নিতে সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন তিনি। না বুঝেই তিনটি বুথ থেকে তিন ডোজ টিকা নেন এ প্রবাসী। একজন ব্যক্তি তিন ডোজ টিকা কীভাবে নিলেন, সেই ব্যাখ্যা নেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে।”

নিউজবাংলা তাদের “একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেয়া ওমর ফারুক পর্যবেক্ষণে” শীর্ষক এক প্রতিবেদনে বলছে, “সৌদি আরবে যাওয়ার আগে করোনা প্রতিরোধী টিকা নিতে সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) আসেন নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা ওমর ফারুক। তবে না বুঝেই তিনটি বুথ থেকে তিন ডোজ টিকা নেন তিনি।”

এদিকে বেসরকারি টেলিভিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুক বলেন, টিকা দিতে আমি যখন ডুকলাম (বিএসএমএমইউ টিকাদান কেন্দ্রে) তখন একজন ডান সাইডের কর্নারে যেতে বললো। তখন সেখানে গিয়ে (বুথ) টিকা দিলাম এবং সেখান থেকে বলা হলো সামনের দিতে যেতে। পরে সামনে গেলে সেখানেও (বুথ) একটি টিকা দেওয়া হলো। পরে সেখান থেকেও দেখিয়ে দেয়া হলো সামনের দিকে যেতে। ওখানে (বুথ) গেলে কিছুই জিজ্ঞেস না করে সরাসরি টিকা দিয়ে দিলো।

তিনি আরও বলেন, মোট তিনবার দেওয়া হয়েছে। যখন বাহিরে গিয়ে অন্যান্য যারা টিকা নিয়েছেন তাদের জিজ্ঞেস করি কতবার দিয়েছেন, তখন সবাই বললো একবার দিয়েছি। 

এদিকে, একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেওয়ার এই খবর মিথ্যা ও গুজব বলে দাবি করেছেন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। যারা বিষয়টি নিয়ে অপপ্রচার চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

“একবার টিকা নিয়ে আরেকজনের কাছে গিয়ে আবার টিকা নেবে এমন কোনো সুযোগ নেই। আমাদের এখানে যারা টিকা দেয় তারা এই বিষয়ে দক্ষ এবং সবাই একটি নিয়মের মধ্যেই টিকা দিচ্ছে।”

এই ঘটনাকে ‘অপপ্রচার’ দাবি করে তিনি বলেন, “আমরা ওই ভদ্রলোককে খুঁজে আনব। আমাদের ডেপুটি ডিরেক্টরকে দায়িত্ব দিয়েছি এ বিষয়ে। তারপর আপনাদের জানাব।”

বিএসএমএমইউ এর পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, কাউকে তিন ডোজ টিকা দেওয়া হয়নি। এই বিষয়ে একটা প্রতিবাদ পাঠানো হচ্ছে।

“যেখানে বাংলাদেশে একজন লোককে একটা টিকা দেওয়া যাচ্ছে না, সেখানে একজনকে তিন ডোজ টিকা একই দিনে কেন দেব? শিক্ষিত হোক আর অশিক্ষিত হোক, এইটুকু জ্ঞান তো সবারই আছে যে একদিনে একবারের বেশি টিকা নেওয়া যায় না। এটা তো খাওয়ার জিনিস না যে একটা করে আইটেম নিয়ে খেতে শুরু করলেন।”

তিনি আরও বলেন, আমাদের নতুন বুথগুলোর দূরত্ব একটা থেকে আরেকটার খুব কাছাকাছি। কিন্তু একটা লোককে একদিনে তিন ডোজ টিকা দেওয়া কোনোভাবেই সম্ভব না। এ ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ