‘ইয়া নাবী সালাম আলাইকা’ গানেই অমর হয়ে থাকবেন সালাহ

Maher Zain, মাহের জাইন, সালাহ গালাল,Salah Galal.,
মাহের জাইন ও সালাহ গালাল  © ফাইল ছবি

কবি সালাহ গালাল (মিশর), বেঁচেছিলেন মাত্র ৩৯ বছর। ২০১২ সালের ২১ নভেম্বর পৃথিবী থেকে বিদায় নেন তিনি। তবে পৃথিবী থেকে বিদায়ের আগে এমন কিছু গান লিখে গেছেন, যেগুলো তাকে বিশ্ববাসীর কাছে অমর করে রেখেছে।

সালাহ গালাল দীর্ঘ দিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী ছিলেন। তবে তিনি তার অসুস্থ্যতার সময়গুলোও কাটিয়েছেন রাসুল (স) প্রেমে— যার ফলে বিশ্ববাসীর জন্য রেখে যেতে পেরেছেন রাসুল প্রেমের কিছু দৃষ্টান্ত।

সালাহের লেখা সবচেয়ে জনপ্রিয় গান ‘ইয়া নাবী সালাম আলাইকা’ (আরবী ভার্সন)। গানটি ইতোমধ্যে ৪২২ মিলিয়ন বার দেখেছেন দর্শকরা- যেটি বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় আন্তজার্তিক কোনো ইসলামী গান।

গানটি প্রকাশ করে লন্ডন ভিত্তিক রেকর্ড লেবেল ‘আওয়েকেনিং রেকর্ডস’(Awakening Records)। আরবি ভার্সন ছাড়াও গানটির তুর্কি ভার্সন (২৩ মিলিয়ন) এবং আন্তর্জাতিক ভার্সনও (৪৫ মিলিয়ন) মুক্তি দেয় প্রতিষ্ঠানটি। এছাড়া সালাহের লিখা ‘রাদিতু বিল্লাহি’ গানটি ১০৪ মিলিয়ন এবং ‘মাওলা ইয়া’ ১৫৩ মিলিয়ন শ্রোতা শুনেছেন। সবগুলো গানেই কণ্ঠ দিয়েছেন সুইডিশ সংগীত তারকা মাহের জাইন।

গত ১৮ ডিসেম্বর ‘আওয়েকেনিং রেকর্ডস’ তাদের ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজে পোস্ট করে সালাহ গালালকে স্মরণ করে বলে, আমরা কখনো আমাদের ‘ইয়া নাবী সালাম আলাইকা’ গানের পিছনের কারিগর, আরবী ভার্সনের প্রতিভাবান গীতিকারকে কখনোই ভুলে যেতে পারি না। আপনারা তার জন্য সূরা ফাতিহা পড়ুন এবং তাকে আপনাদের প্রার্থনায় রাখুন।’

মাহের জাইন ছাড়াও ‘আওয়েকেনিং রেকর্ডস’ এর অনেকেরই সাথে সালাহের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল।

উল্লেখ্য, আতিফ আসলাম (পাকিস্তান), সামি ইউসুফ( যুক্তরাজ্য), হ্যারিস জেই ( ইংল্যান্ড), রায়েফ ( যুক্তরাষ্ট্র), মোস্তফা সিসিলি (তুরস্ক), সিনান অ্যাকসিল (তুরস্ক), হুমুদ আল খুদর (কুয়েত), হামজা নামিরা (মিশর), সেলিম-সুলাইমান (ভারত), মেসুত কুরতিসসহ (মেসিডোনিয়া) বেশ কয়েকজন বিশ্বখ্যাত তারকা ‘আওয়েকেনিং রেকর্ডস’ এর ব্যানারে গান করেছেন।

গত ১৫ অক্টোবর মুক্তি পায় সালাহের লেখা আরেকটি সুফি গান। পৃথিবী ত্যাগের আগে সালাহের লেখা গানগুলোর অন্যতম এ ‘হুব্বুন-নাবি’। রাসুল (স) এর ভালোবাসায় লিখা গানটি সালাহের মৃত্যুর প্রায় এক দশক পর মুক্তি দিল প্রতিষ্ঠানটি। গানটির কম্পোজিশন করেছেন মিশরের  মোহাম্মদ আল সাঈ।

এ ব্যাপারে গানটির শিল্পী মাহের জাইন বলেন, ‘এক দশক পর ‘হুব্বুন-নাবি’ গানটি মুক্তি পাওয়ায় গানটি একটু বেশি স্পেশাল। গানটি রাসুল (স) এর প্রতি একটু বেশি ভালোবাস সৃষ্টি করছে — যেটি তিনি আমাদের শিখিয়েছেন। ’

গানটি নিয়ে ‘আওয়েকেনিং রেকর্ডস’ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বারা খিরেগী বলেন, ‘আমার বন্ধু সালাহ যখন আমাকে গানটির ডেমো শোনায়, তখন আমি সত্যিই রাসুল (স) এর প্রেমে ডুবে গিয়েছিলাম। সালাহ মারা যাওয়ার পর আমি গানটি রেখে দেই এবং ২০২১ সালে ‘ইয়া নাবী সালাম আলাইকা’ গানটির এক দশক ফূর্তি উপলক্ষ্যে মুক্তি দেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন উপযুক্ত সময় সালাহকে সম্মান করার এবং তার কর্মকে সারা বিশ্বে তুলে ধরার।’

লেখক: গায়ক ও সংবাদকর্মী 


সর্বশেষ সংবাদ