ঢাবিতে ভর্তি শেষ হলে মেডিকেলের প্রথম মাইগ্রেশন

মাইগ্রেশন
মেডিকেল শিক্ষার্থী  © ফাইল ফটো

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর মেডিকেলের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের মাইগ্রেশন শুরু হবে। ঢাবিতে ভর্তি শেষ না হলে মাইগ্রেশন ফলপ্রসু হবে না। সেজন্য ভর্তি প্রক্রিয়া শেষে মাইগ্রেশন এবং অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তি শুরু করা হবে।

শনিবার (২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসের সাথে আলাপকালে এসব কথা জানান স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ. এইচ. এম এনায়েত হোসেন।

তিনি বলেন, ঢাবি অথবা বুয়েট এই দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোন একটির ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ না হলে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের মাইগ্রেশন হবে না। কেননা ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হলে মেডিকেলের বেশ কিছু শিক্ষার্থী ঢাবি কিংবা বুয়েটে চলে যাবে। তখন আমাদের অনেক আসন ফাঁকা হবে। তাই ফলপ্রসু মাইগ্রেশন করতে হলে ঢাবি কিংবা বুয়েটের ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হতে হবে।

এদিকে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেলে প্রথম বর্ষের ক্লাস শুরু হওয়ায় অপেক্ষমাণ তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীরা দ্রুত সময়ের মধ্যে মাইগ্রেশন এবং ওয়েটিং লিস্টে থাকাদের ভর্তির দাবি জানিয়েছেন। তারা বলছেন, ফল প্রকাশের পাঁচমাস অতিবাহিত হলেও এখনো অপেক্ষমাণদের ভর্তি শুরু না করায় তাদের শিক্ষা জীবন হুঁমকির মুখে পড়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় দ্রুত অপেক্ষমাণদের ভর্তি শেষ করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, প্রথম মাইগ্রেশন শেষ না হলে আমরা অপেক্ষমান তালিকায় থাকাদের ভর্তি শুরু করবো না। এমনও হতে পারে প্রথম মাইগ্রেশন এবং অপেক্ষমান তালিকায় থাকাদের ভর্তি একসঙ্গে শুরু হচ্ছে। 

তথ্যমতে, এবার সরকারি মেডিকেলে মোট আসন সংখ্যা ৪ হাজার ৩৫০টি। এর মধ্যে ৫৩টি আসনে কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি হয়নি। প্রথম মাইগ্রেশন সম্পন্ন হওয়ার পর অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তি শুরু করবে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর।

প্রসঙ্গত, গত ২ এপ্রিল সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৫৫টি ভেন্যুতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় এক লাখ ১৬ হাজার ৭৯২ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। গত ৪ এপ্রিল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। পরীক্ষায় পাস করেন ৪৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী।


মন্তব্য

x