সেন্ট জোসেফে ৬৫তম বিজ্ঞান মেলার সমাপনী

মেলা
মেলায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষর্থীরা   © টিডিসি ফটো

সেন্ট যোসেফ উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলো প্রতিষ্ঠানটির ৬৫তম বিজ্ঞান মেলা। করোনার কারণে গত দুই বছর বন্ধ থাকার পর এবছর আবার  মেলার আয়োজন করা হয়। এ মেলায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা বিপুল উৎসাহের সাথে অংশগ্রহণ করেন।

শনিবার (১১ জুন) রাজধানীর মোহম্মদপুরে প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গণে পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ৩ দিনব্যাপী মেলার সমাপনী দিবসের কার্যক্রমে শেষ হয়।

পুরস্কর বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব) এর উপাচার্য অধ্যাপক ইমরান রহমান। বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড. ব্রাদার সুবল লরেন্স রোজারিও’র সভাপতিত্বে মেলার উদ্বোধক ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ৩ দিনব্যাপী এ মেলার শুরু হয়। মেলায় রোবোটিক্সস, গণিত অলিম্পিয়াডসহ বেশ কয়েকটি ইভেন্টে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। মেলায় শিক্ষার্থীরা নিজেদের তৈরি সোলার প্যানেল, রোবটসহ তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন বিষয়ের প্রোজেক্ট এবং গবেষণামূলক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেছে। এসব প্রজেক্ট সবাইকে অবাক করে দিয়েছে।

আরও পড়ুন: গুচ্ছে জিপিএ নম্বর নির্ধারণ করবে নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয়

বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষক (বিজ্ঞান) আবুল বাশার সারা দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান মেলা করার আহ্ববান জানিয়ে বলেন, বড় পরিসরে না হলে অন্তত ছোট পরিসরে হলেও দেশের প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠানে-ই বিজ্ঞান মেলার আয়োজন করা উচিত। তাহলে আমাদের গ্রামে প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা তাদের প্রতিভার বিকাশ ঘটাতে পারবে।এটি তাদের চিন্তার জগৎ ও মননশীলতায় অনেক পরিবর্তন এনে দিতে সক্ষম।

আরেক সহকারী শিক্ষক নাইমুল ইসলাম জানান, করোনার কারণে গত দুই বছর বিজ্ঞান মেলার আয়োজন করা হয়নি। তবে এ বছর দেশের প্রায় ৭৫টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মেলায় অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিলো। তারা ছাড়াও আমাদের শিক্ষার্থীরা এতে অংশগ্রহণ করেছে। শিক্ষার্থীদের মাঝে এ নিয়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা কাজ করছে। দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই এ বিজ্ঞান মেলা আয়োজন করা উচিত।

এদিকে করোনার কারণের দুই বছর বন্ধ থাকার পর পুনরায় মেলা অনুষ্ঠিত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। মেলায় অংশ নেয়া সেন্ট জোসেফ স্কুলের ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাহসিন বলেন, আমরা পাঠ্যপুস্তকে বিজ্ঞানের যে থিউরিগুলো পড়ছি, মেলায় সেগুলো আমরা ব্যবহারিকভাবেই করতে পারছি—এতে অনেক ভালো লাগছে।

উল্লেখ্য, এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ জুন) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, বিজ্ঞান জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ, কেউ এর বাইরে থাকতে পারে না। তিনটা শিল্প বিপ্লব পার হয়ে গেছে, সেগুলো আমরা ধরতে পারিনি। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবটি শুধু আমাদের ধরতে পারা নয়, এর সফল অংশীদার হতে হবে। এজন্য আমাদের প্রস্ততি নিতে হবে, বিজ্ঞান শিক্ষার ওপর অনেক জোর দিতে হবে।

বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড. ব্রাদার সুবল লরেন্স রোজারিওর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিশিষ্ট অণুজীববিজ্ঞানী সেঁজুতি সাহা, কো-ফাউন্ডার শাহির চৌধুরী, নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. প্যাট্রিক গাফনে, সেন্ট জোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উপাধ্যাক্ষ ভিকটর বিকাশ রোজারিও প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।


সর্বশেষ সংবাদ