পিসাইকেলের উদ্যোগে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ওরিয়েন্টেশন

পিসাইকেল
পিসাইকেলের উদ্যোগে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ওরিয়েন্টেশন  © টিডিসি ফটো

গৃহস্থালির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে ওরিয়েন্টেশন ও মডেল মিনি বর্জ্য ট্রান্সফার সেন্টার স্থাপন করেছে পরিবেশবাদী সংগঠন পিসাইকেল। শুক্রবার (২৭ আগস্ট) রাজধানীর মোহাম্মদপুরের পিসিকালচার হাউজিং সোসাইটি এলাকার একটি কনফারেন্স হলরুমে প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও তিন নম্বর রোডে মিনি বর্জ্য ট্রান্সফার সেন্টার স্থাপন করা হয়।

এ কার্যক্রমের উদ্যোক্তারা জানান, সম্প্রতি ব্রিটিশ কাউন্সিলের ‘কপ-২৬’ ইয়ুথ এঙ্গেইজমেন্ট চ্যালেঞ্জ ফান্ড জিতেছে পরিবেশবাদী সংগঠন পিসাইকেল এর ক্লাইম প্লাস সোশ্যাল অ্যাকশন প্রজেক্ট উদ্যোগ। এই উদ্যোগের আওতায় বাংলাদেশের জন্য বড় হুমকি অপরিশোধিত প্লাস্টিক বর্জ্যের সঠিক ব্যবহার সম্বন্ধে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে সচেতনতামূলক এ কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

তারা আরও জানান, মানুষের সচেতনতার অভাবে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলার ফলে পরিবেশ যেমন দূষিত হচ্ছে তেমনি যত্রতত্র মাটির সাথে প্লাস্টিক বর্জ্য মিশে মাটিকে করে তুলেছে বিষাক্ত। এমন অবস্থায় যতদিন যাবে মানুষ যদি সচেতন না হয় তবে পরিবেশ ও আবহাওয়া দুটোই ব্যবহারের জন্য অসহনীয় হয়ে পড়বে।

এসব সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ে পরীক্ষামূলকভাবে মোহাম্মদপুরের পিসিকালচার হাউজিং সোসাইটি এলাকায় বসবাসরত মানুষদের পচনশীল এবং অপচনশীল বর্জ্যগুলো আলাদাভাবে সংরক্ষণের জন্য উদ্বুদ্ধ করতেই বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এবং মিনি ডাস্টবিন প্রদান করা হয়।

সংগঠনটির টিম লিড মেহেদি হাসান বাপ্পী বলেন, পিসাইকেলের ক্লাইম প্লাস প্রজেক্ট এর মাধ্যমে বাসা বাড়ির পচনশীল ও অপচনশীল বর্জ্যগুলো আলাদা ডাস্টবিনে রাখার মধ্য দিয়ে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার একটি মডেল কমিউনিটি তৈরি করার জন্য কাজ করে হচ্ছে। এর অংশ হিসাবে মোহাম্মদপুর এলাকায় প্রাথমিকভাবে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এই মডেল উদ্যোগটি পচনশীল বর্জ্যগুলো দিয়ে জৈব সার এবং অপচনশীল বর্জ্য গুলো পুনরায় রিসাইকেল করার পদক্ষেপ ও নেয়া হবে।

প্রশিক্ষণে পিসাইকেলের ট্রেনিং এন্ড রিসার্চ এক্সিকিউটিভ জান্নাতুল বাকিয়া সুইটি গৃহস্থালির বর্জ্য পরিবেশের জন্য যে ভয়াবহ হুমকি তৈরি করছে সে সম্বন্ধীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করেন এবং পচনশীল ও অপচনশীল গৃহস্থালি বর্জ্য আলাদা করার মাধ্যমে কিভাবে বর্জ্যকে সম্পদে রুপান্তর করা যায় সে সম্পর্কে আলোকপাত করেন।

প্রসঙ্গত, সোশ্যাল অ্যাকশন প্রজেক্ট ক্লাইম প্লাস একটি নতুন মডেল উদ্যোগ যা স্বল্পমেয়াদী এবং দীর্ঘমেয়াদী দুটি পর্যায়ে কাজ করবে । প্রাথমিকভাবে এই কার্যক্রমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে যুবকদের জলবায়ু পরিবর্তনের নানান খুঁটিনাটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করে ‘ইয়ং ক্লাইমেট অ্যাডভোকেট’ হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। আর পরবর্তীতে এসব প্রশিক্ষিত যুব প্রতিনিধিগণ অনলাইন এবং অফলাইনে সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা তৈরি করতে কাজ করবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ

x