২০৩০ সালে পাওয়া যাবে ক্যানসারের টিকা!

কোষ
ক্যানসার কোষের প্রতীকী ছবি  © ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের সফল আবিষ্কারক এক দম্পতি এবার প্রাণঘাতী আরেক ব্যাধি ক্যানসারের টিকা নিয়ে আশার বাণী শুনিয়েছেন। তারা বলছেন, ২০৩০ সালের মধ্যেই ক্যানসারের ভ্যাকসিন রোগীদের জন্য সহজলভ্য হতে পারে।

জার্মান এই দম্পতির দাবি, ক্যানসারের ভ্যাকসিন খআবিষ্কার করে ফেলেছেন বলতে দ্বিধাবোধ করলেও তারা ‘যুগান্তকারী’ আবিষ্কারের পথে রয়েছেন। আর এটি নিয়ে তারা কাজ চালিয়ে যাবেন।

তারা বলেছেন, মহামারিতে ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করা ফাইজার-বায়োএনটেকের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের আবিষ্কার এবং সাফল্যই ‘আমাদের ক্যানসারের কাজে ফিরিয়ে নিয়েছে’।

বিবিসির সানডে অনুষ্ঠানে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জার্মান এই দম্পতি কথা বলেছেন ক্যানসারের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের আদ্যোপান্ত নিয়ে।

কবে নাগাদ বিশ্বের সব রোগীর কাছে ক্যানসারের টিকা সহজলভ্য হতে পারে, এমন এক প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক সাহিন বলেছেন, ২০৩০ সালের আগেই এটি হতে পারে।

বিবিসির কুয়েনসবার্গকে তুরেসি বলেছেন, ক্যানসারের ভ্যাকসিন তৈরির জন্য আমরা কয়েক দশক ধরে যা তৈরি করেছি, তা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরিতে হাওয়া দিয়েছে। এখন কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন এবং এটি তৈরি করতে গিয়ে আমাদের যে অভিজ্ঞতা হয়েছে, তা ক্যানসারের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কাজকে গতিশীল করছে।

‘আমরা শিখেছি কীভাবে আরও ভালো, আরও দ্রুত ভ্যাকসিন তৈরি করা যায়। আমরা বিপুলসংখ্যক মানুষের মাঝে ইমিউন সিস্টেম কীভাবে এমআরএনএর প্রতি প্রতিক্রিয়া দেখায় সেটি শিখেছি।’

তিনি বলেন, করোনা ভ্যাকসিনের আবিষ্কার নিয়ন্ত্রকদের এমআরএনএ ভ্যাকসিন এবং কীভাবে সেগুলো ব্যবহার করতে হয় সে সম্পর্কে জানতে সাহায্য করেছে।

তুরেসি বলেছেন, এটি অবশ্যই আমাদের ক্যানসারের টিকা তৈরির গতিকেও ত্বরান্বিত করবে। এই দম্পতি ক্যানসারের টিকা আবিষ্কারের ব্যাপারে আশাবাদী হলেও সতর্কতা উচ্চারণ করেছেন। অধ্যাপক তুরেসি বলেছেন, আমাদের কাছে ক্যানসারের টিকা থাকবে, বিজ্ঞানী হিসাবে আমরা এভাবে বলতে সবসময় দ্বিধাবোধ করি।

‘আমাদের অনেক সফলতা রয়েছে এবং আমরা সেগুলোর ওপর কাজ চালিয়ে যাব।’


সর্বশেষ সংবাদ