শোকজের মধ্যেই বিজয়ের অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষের উপস্থিতি নিয়ে বিতর্ক

ভিকারুননিসা
ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ  © ফাইল ফটো

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে কর্মকর্তা নিয়োগ পরীক্ষার উত্তরপত্রে ঘষামাজার অভিযোগ পাওয়া গেছে অধ্যক্ষ ও শিক্ষক প্রতিনিধির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় তাদের শোকজ করা হয়েছে। শোকজের জবাব না দিয়েই স্কুলের বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে তারা অংশগ্রহণ করেন।

নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনা অমীমাংসিত রেখে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ ও শিক্ষক প্রতিনিধির উপস্থিতি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাধারণ শিক্ষক ও অভিভাবকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষক এ বিষয়ে বলেন, অধ্যক্ষ ফওজিয়া রেজওয়ান ও শিক্ষক প্রতিনিধি ফাতেমা জোহরা হকের বিরুদ্ধে নিয়োগ পরীক্ষায় খাতা ঘষামাজার প্রমাণ পাওয়া গেছে। কিন্তু বিচার প্রক্রিয়াধীন অবস্থায় স্কুলের একটি অনুষ্ঠানে তারা অতিথি হওয়াটা বিব্রতকর।

এ বিষয়ে গভর্নিং বডির সভাপতি এ কে এম মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, তাদের বিরুদ্ধে কর্মকর্তা নিয়োগ পরীক্ষায় প্রার্থীর উত্তরপত্রে নম্বর বাড়িয়ে দেয়ার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। তাদের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অপরাধীকে শাস্তির আওতায় আনার আগে তার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেয় হয়। সে কারণে তাদের শোকজ করা হয়েছে। তবে শোকজের জবাব না দিয়েই অনুষ্ঠানে এ দুজনের উপস্থিত হওয়ার বিষয়ে আমি আগে জানতাম না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অভিভাবক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ সুজন বলেন, ‘ঐতিহ্যবাহী এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পরীক্ষার খাতা ঘষামাজা করা হয়েছে। কিন্তু অভিযুক্ত অধ্যক্ষ ও শিক্ষক প্রতিনিধিকে নিয়ে বিজয় দিবসের মঞ্চে বিশেষ অতিথি হিসেবে স্থান দেয়া হয়েছে। সেই অনুষ্ঠানে বিভাগীয় কমিশনার এবং গভর্নিং বডির সভাপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘তারা বর্তমানে সাময়িক বরখাস্ত। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলমান। এমন পরিস্থিতিতে তাদের বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে আসন দেয়া উচিত হয়নি। এটি নিয়ে অভিভাকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। তদন্ত করে এ ঘটনার বিচার দাবি করছি।


মন্তব্য