বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধুর আন্দোলন-সংগ্রামে অনুপ্রেরণার উৎস: বশেফমুবিপ্রবি ভিসি

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন বশেফমুবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন বশেফমুবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ  © টিডিসি ফটো

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেফমুবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বঙ্গমাতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আন্দোলন-সংগ্রামে অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন।

সোমবার (৮ আগস্ট) বঙ্গমাতার ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার সংলগ্ন বকুলতলায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বশেফমুবিপ্রবি ভিসি বলেন, বাঙালি জাতির প্রতি বঙ্গমাতার ভালোবাসা ছিল অকুণ্ঠ ও অকৃত্রিম। আর তাই তিনি হয়ে ওঠেন বাঙালি জাতির বঙ্গমাতা।

তিনি বলেন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কেবল বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী ছিলেন না, ছিলেন সহযোদ্ধা, নীরব রাজনৈতিক সহকর্মী। জাতির পিতার খোকা থেকে বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠার পিছনে নীরব সংগঠকের মত কাজ করেছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত রেজিস্ট্রার সৈয়দ ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সুশান্ত কুমার ভট্টাচার্য, মেলান্দহ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জি. কামরুজ্জামান, বঙ্গবন্ধু পরিষদ বশেফমুবিপ্রবির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস উদ্দিন, মেলান্দহ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ,সাধারণ সম্পাদক মো. জিন্নাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মির্জা আব্দুল হালিম, সহকারী রেজিস্ট্রার কৃষিবিদ আনিসুজ্জামান আনিস প্রমুখ।

আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হবে বশেফমুবিপ্রবি: উপাচার্য

আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু পরিষদ বশেফমুবিপ্রবির সভাপতি ড. এএইচএম মাহবুবুর রহমানের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কাউছার আহমেদ স্বাধীন, যুগ্ম আহ্বায়কদের মধ্যে তাইফুল ইসলাম পলাশ, ফকির এহসানুল হক ইরফান, মোস্তাফিজুর রহমান সোহাগ, জাহিদ হাসান অনিক, মোশাররফ হোসেন, ইনতিসার আহমেদ সানি প্রমুখ।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্মিত বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ সামসুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক কর্ণেল (অব:) কাজী শরীফ উদ্দিনের নেতৃত্বে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের 
সমাধি জিয়ারত এবং ফুলেল শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করে ছাত্রলীগের নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ। এরপর একটি র্যালি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে গোবিন্দগঞ্জ বাজারে গিয়ে প্রধান ফটকে শেষ হয়।


x

সর্বশেষ সংবাদ