‘দাবি পূরণ না করলে মনে করবো বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন’

শাবিপ্রবিতে আন্দোলন
শাবিপ্রবিতে ড. জাফর ইকবাল  © সংগৃহীত

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) সাবেক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, এখানে আসার আগে একদম উচ্চ মহল থেকে আমাকে বলা হয়েছে তোমাদের দাবি-ধাওয়া মেনে নেয়া হবে। সেজন্য আমি এখানে এসেছি। নাহলে আমি এখানে আসতাম না। একটু আগে বলা হয়েছে তোমাদের দাবিগুলো যেন লিখে ওনাদেরকে পৌঁছে দেই।

তিনি আরও বলেন, আমার আর ছাত্রদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নাই। আমাকে যে কথা দেয়া হয়েছে সেটি আশা করি তারা পূরণ করবেন। আমাকে দেয়া কথা যদি না পূরণ করেন তাহলে মনে করবো শুধু শিক্ষার্থীদের সাথে না, আমার সাথে ও দেশের প্রগতিশীল মানুষদের সাথে তারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন।

আজ বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সকালে শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙানোর পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। 

এসময় ড. জাফর ইকবাল আরও বলেন, নাম উল্লেখ না করে শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। যারা এই আন্দোলনে সহায়তা করেছে অর্থ দিয়ে। সেই সাবেক শিক্ষার্থীদের আটক করে এখন জেলে রাখা হয়েছে। এগুলোর দ্রুত সমাধান চাই।

আরও পড়ুন- ১৬৩ ঘণ্টা পর অনশন ভাঙলেন শিক্ষার্থীরা

তিনি বলেন, আমি আসলে কল্পনা করি নাই। এমন একটা জিনিস দেখতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়টির সাবেক এই অধ্যাপক বলেন, আমি এখানে বহিরাগত। বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ম করা হয়েছে সাবেক শিক্ষকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে হলে পারমিশন নিতে হবে। পারমিশন ছাড়া ঢুকে গেছি। তাই টেকনিক্যালি আমি বহিরাগত।

আরও পড়ুন- উচ্চ মহলের আশ্বাসে এসেছি: ড. জাফর ইকবাল

১৩ জানুয়ারি রাত থেকে প্রভোস্ট বডির পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে ছাত্রীরা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দাবি আদায়ে সময় চাওয়ায় আন্দোলন চালিয়ে যায় শিক্ষার্থীরা। পরে ছাত্রলীগ ও পুলিশের অ্যাকশনের পর সেই আন্দোলন ভিসির পদত্যাগের আন্দোলনে রূপ নেয়। দাবি আদায়ে অনশন শুরু করেন ২৪ জন শিক্ষার্থী। একজনের বাবা অসুস্থ হওয়ায় তিনি অনশন ভেঙে বাড়ি যান। পরে আরও পাঁচ শিক্ষার্থী অনশনকারীদের সাথে যোগ দেন। এদিকে দফায় দফায় আলোচনা করেও শিক্ষার্থীদের আন্দোলন থেকে সরাতে পারেনি সরকার। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনির বারবার আশ্বাসেও মন গলেনি শিক্ষার্থীদের।


x

সর্বশেষ সংবাদ