শাবিপ্রবি ভিসির পদত্যাগ দাবি সাবেক শিক্ষার্থীদের

ঢাবি
রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন   © টিডিসি ছবি

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে(শাবিপ্রবি) আন্দোলনরত অবস্থায় শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ভিসির পদত্যাগ দাবি করেছেন শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা।

১৭ জানুয়ারি (সোমবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে এই পদত্যাগ দাবি জানানো হয়। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদক্ষেপ দাবি করেন। এরপর একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা। মিছিলটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্য থেকে শুরু হয়ে টিএসসি, শহীদ মিনার হয়ে আবারো রাজু ভাষ্কর্যে এসে শেষ হয়। সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন তারা।

মিছিলে বিক্ষোভকারীরা "ক্যাম্পাসে হামলা কেন, প্রশাসন জবাব চাই", "প্রশাসনের স্বৈরাচার, মানি না মানি না", "ভিসির পদত্যাগ, মানতে হবে, মানতে হবে", "এক-দুই-তিন-চার ফরিদ তুই গদি ছাড়", "পতন! পতন! পতন চাই, বোমাবাজের পতন চাই", "হল আমরা ছাড়বো না, ক্যাম্পাস কারও বাপের না" ইত্যাদি স্লোগান দিতে থাকে।

আরো পড়ুনঃ শাবিপ্রবিতে ভবনে ভবনে তালা, ভিসির পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল

বিক্ষোভ সমাবেশে শাবিপ্রবির ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তানভীর আকন্দ বলেন, "আমরা দেখেছি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা পুলিশের কাছে ফুল নিয়ে গিয়েছিল কিন্তু পুলিশ তার জবাব দেয় গুলি করে। এর প্রতিবাদে আমরা শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা মাঠে নেমেছি। আমরা আর কোনো বিশৃঙ্খলা চাই না, আমরা চাই এই স্বৈরাচারী প্রশাসন, এই স্বৈরাচারী ভিসির পদত্যাগ। আমাদের আরো একটি বড় দাবি হচ্ছে, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা আহত হয়েছেন, অসুস্থ হয়েছেন তাদের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ প্রদার করবে। তাছাড়া ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় এই প্রক্টর বডিকে পদত্যাগ করতে হবে।"

তিনি আরো বলেন, "এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করতে হবে এবং এই আন্দোলনের প্রেক্ষিতে যাতে কোনো শিক্ষার্থী কোনো ধরনের নির্যাতনের শিকার না হয়। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রশাসনকে দেখতে চাই না, আমরা শাবিপ্রবিকে শিক্ষার্থী বান্ধব শাবিপ্রবি হিসেবে দেখতে চাই। একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বাত্মক গণতান্ত্রিক পরিবেশ আমরা চাই, আমরা স্বৈরাচারী প্রশাসন চাই না।"

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১১-১২ সেশনের রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম জুয়েল বলেন, "আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন এমন উন্নয়ন করেছে যে একবিংশ শতাব্দীতে এসেও হলের শিক্ষার্থীরা খাওয়ার জন্য সুপেয় পানি পাচ্ছে না। নিয়মিত পুষ্টিমান সম্পন্ন খাবারের ব্যবস্থা করতে পারে না। খাবার খেতে গেলে পোকা পাওয়া যায়, পুষ্টিমানের কোনো হদিসই নেই। এরকম পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলের মেয়েরা আন্দোলনে নেমেছিল, সেই মেয়েদেরকে পেটানো হয়েছে। ছাত্রীদের আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থী যখন এক হয়ে আন্দোলন করতেছিল তখন তাদের উপর পুলিশকে লেলিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা এর ধিক্কার জানাচ্ছি। তাই এই প্রশাসন, ভিসি, প্রক্টর, প্রভোস্ট কমিটির পদত্যাগ দাবি করছি।"

শিক্ষার্থীরা বলেন, "আমরা দেখেছি শিক্ষার্থীরা পুলিশের কাছে ফুল নিয়ে গিয়েছিল, অথচ পুলিশ তার জবাব দেয় গুলি করে। এই ন্যাক্কারজনক ঘটনায় আমরা শাবিপ্রবির সাবেক শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে সমবেত হয়েছি। আমরা চাই এই স্বৈরাচারী উপাচার্যের পদত্যাগ চাই। এটা আমাদের বর্তমান-সাবেক সকল শিক্ষার্থীর দাবি।"


x

সর্বশেষ সংবাদ