বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষক নিহত: ৩ দিনের মধ্যে ড্রাইভারের বিচারের দাবি 

করোনা
শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন  © টিডিসি ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সাবেক শিক্ষার্থী উপদেষ্টা কাজী মসিউর রহমান নিহতের ঘটনায় বাস চালকের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালযয়টির সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা আগামী তিন দিনের মধ্যে অভিযুক্ত ড্রাইভারকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে। 

শনিবার (১৬ অক্টোবর) গোপালগঞ্জের ঘোনাপাড়া এলাকায় খুলনা-ঢাকা মহাসড়কে প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের উপস্থিতিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, "স্যার অসংখ্য হতাশাগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের বাঁচার স্বপ্ন দেখিয়েছেন। শৃঙ্খলার মাধ্যমে দাবি আদায়ের আদর্শ শিখিয়ে দিয়ে গেছেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় স্যার পৃথিবী থেকে চারদিন আগে চলে গেছেন, অথচ ঘাতক ড্রাইভারকে বিচারের আওতায় আনা হয়নি।অতিদ্রুত এই ড্রাইভারকে আটক করে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার জন্যে আমি প্রশাসনসহ দায়িত্বরত সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।"

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী মাকসুমুল আরেফিন বলেন, “এর আগেও আমরা সড়কে অসংখ্য প্রাণ হারাতে দেখছি। আমরা আর কোনো মৃত্যু দেখতে চাই না। আগামী তিনদিনের মধ্যে মসিউর স্যারের মৃত্যুর জন্য দায়ী ড্রাইভারকে গ্রেফতার না করলে আমরা আমরণ অনশন, সড়ক অবরোধসহ কঠোর অবস্থানে যাবো।”

অপর এক শিক্ষার্থী শেখ তারেক বলেন, "আমরা জানি ইমাদ পরিবহন ইতিমধ্যে অনেক দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে। এই খুনী পরিবহনের বিরুদ্ধে আমরা এখনি সোচ্চার হই নতুবা আমাদের আরও তাজা প্রাণ দিতে হবে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বশেমুরবিপ্রবি শাখার পক্ষ থেকে অতিদ্রুত আমরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবি জানাচ্ছি।"

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষক ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হাবিবুর রহমান বলেন, "দেশের সড়কগুলো মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। প্রতিটি স্তরের মানুষকে সড়কে প্রাণ দিতে হচ্ছে, পঙ্গুত্ব বরণ করতে হচ্ছে। বেপরোয়া চালক নামক সড়ক সন্ত্রাসী রয়েছে তাদের সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। আমরা এই অচলায়তনের অবসান চাই। কাজী মসিউর রহমানকে যেভাবে হত্যা করা হলো এই হত্যার বিচার না হলে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি সদস্যদের সাথে অবিচার করা হবে।"

মানববন্ধনে বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রহমান বলেন, "এত সংগ্রাম, এত আন্দোলনের পরেও আমরা নিরাপদ সড়ক পাইনি। প্রতিনিয়তই সড়ক মৃত্যুর মিছিলে পরিণত হচ্ছে। আজ সেই মৃত্যুর মিছিলে যোগ দিয়েছে আমাদের প্রাণের মানুষটিও। তবে আমরা যেন না বলি এটা মৃত্যু এটা আসলে হত্যা। প্রতিটা সড়ক হত্যারই বিচার হোক সেই আহবান জানাচ্ছি"।

প্রসঙ্গত,বুধবার (১৩ অক্টোবর) ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়কের নাজিরপুর থানার কবিরাজবাড়ি এলাকায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় ইমাদ পরিবহনের একটি বাসের সাথে ভ্যানের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। উক্ত দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় কাজী মসিউর রহমানকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


মন্তব্য

x