ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা বাড়ানোর কৌশল

ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা বাড়ানোর কৌশল
ফেসবুক   © সংগৃহীত

প্রযুক্তি নির্ভর এই বিশ্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু অনেকেরই ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা কম কিংবা মনের মতো বন্ধু নেই বললেই চলে। তবে এরও সমাধান আছে। তাহলে আর দেরি না করে চলুন জেনে নেই কী করলে আপনার কাছে বেশি বেশি ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট আসবে। 

প্রোফাইল বায়ো
প্রত্যেকেরই ফেসবুক প্রোফাইল সঠিকভাবে সাজানো দরকার। কারণ কোনো প্রোফাইল থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাওয়ার পর সবাই সেই প্রোফাইল সম্পর্কে খুঁটিয়ে দেখেন। সে কারণে প্রোফাইলে বায়ো ভালো করে লেখা দরকার।

ডিপিতে নিজের ছবি
অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছেন যারা নিজের ডিপিতে ফল, ফুল, গাছসহ বিভিন্ন ধরনের অপ্রাসঙ্গিক বস্তুর ছবি দিয়ে রাখেন। এ ক্ষেত্রেও অন্য অ্যাকাউন্টের কাছে এই ধরনের প্রোফাইলের গ্রহণযোগ্যতা কমে। এই ধরনের প্রোফাইল থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠালেও অনেকে তা গ্রহণ করেন না।

আরও পড়ুন: গরুর মাংস কতটুকু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো

প্রোফাইল লক
বর্তমানে ফেসবুক প্রোফাইল লক করার ট্রেন্ড চালু হয়েছে। ফলে যে কেউ নিজের প্রোফাইল লক করে রাখতে পারেন। লক করা অবস্থায় ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠালে অনেকেই তা গ্রহণ করেন না। কারণ, ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পেলেও প্রোফাইল সম্পর্কে কোনও স্বচ্ছ ধারণা তৈরি হয় না। এমনকি প্রোফাইল ফোটো দেখতেও সমস্যা হয়। সেকারণে এই ধরনের প্রোফাইলের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করেন না অনেকেই।

​অপরিচিতকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট নয়
অপরিচিত কোনো ব্যক্তিকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠালে আপনার ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট নাও হতে পারে। সেকারণে ফেসবুক যে ফ্রেন্ড সাজেশন পাঠায় সেগুলোকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারেন। সেক্ষেত্রে অ্যাকসেপ্টের সম্ভাবনা বেশি থাকে। কারণ আপনার ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট কে অ্যাকসেপ্ট করতে পারেন তার বিচারেই ওই সাজেশন তৈরি করে ফেসবুক।

এছাড়াও কিছু আরও কিছু কৌশল অবলম্বন করতে পারেন-

.ফেসবুকে নিজের সম্পর্কে সঠিক ও বিস্তারিত তথ্য দিন। আপনার হোম টাউনি, কোথায় বসবাস করেন, কোথায় চাকরি করেন, কোথায় পড়াশুনা করেছেন ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে দিন। 
.সবাই যাতে আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারে, সেটিংসে গিয়ে সেটি করফার্ম করুন।
.নিয়মিত স্ট্যাটাস দিন। মাঝে মাঝে তথ্যমূলক ও জনগুরুত্বপূর্ণ পোস্ট দিন। কোথাও ঘুরতে গেলে সেখানকার বিভিন্ন তথ্য ও মজার দিকে তুলে ধরে ছবিসহ পোস্ট করুন।
.প্রোফাইল পিকচারে অবশ্যই নিজেরই ছবি দিন। না হলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটিকে অনেকে ফেক মনে করতে পারেন। 
.নিজের প্রোফাইলে যা পোস্ট করবেন, তার যেন বৈধতা থাকে সেদিকে নজর রাখবেন। বানান ও ব্যাকরণগত দিক থেকেও লেখা যাতে নির্ভুল থাকে সেদিকে খেয়াল রাখুন।
.সেটিংসে গিয়ে এসব তথ্যকে অবশ্যই পাবলিক করে রাখুন। 
.অন্যদের পোস্ট করা ছবি ও স্ট্যাটাস (পছন্দ হলে) নিয়মিত লাইক ও কমেন্ট করুন।
.ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপে যুক্ত হয়ে সেসব গ্রুপের বিভিন্ন ইতিবাচক পোস্টে লাইক-কমেন্ট করুন। এতে গ্রুপের অন্যদের নজরে আসবেন আপনি।


x