‘আসকে আমার মন ভালো নেই’— ভাইরাল হওয়ার কারণ কী?

ভাইরাল
ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিও তৈরি করা যুবক (ইনসেটে)  © টিডিসি ফটো

ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সম্প্রতি ‘আসকে (আজকে) আমার মন ভালো নেই’ বাক্যটি ভাইরাল হয়েছে। ফেসবুক সেলিব্রেটি থেকে শুরু করে সাধারণ ব্যবহারকারীরা এ নিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। সঙ্গে জুড়ে দিচ্ছে স্মরণীয় ছবি কিংবা ভিডিও।

এদিকে, ভাইরাল এই বাক্যটি গতকাল বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থী তার মিডটার্মের খাতায় লিখে ফেসবুকে পোস্ট করলে তা সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ওই শিক্ষার্থী পোস্টটি ডিলিট করে দিলেও শাস্তির মুখোমুখি হতে যাচ্ছে। আগামী রবিবার তাকে বিভাগে ডাকা হয়েছে। অভিযুক্ত ওই শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের (২০২০-২০২১) শিক্ষাবর্ষে অধ্যয়নরত।

আরও পড়ুন: ‘আজকে আমার মন ভালো নেই’ লিখে শাস্তি পেতে যাচ্ছেন জবি ছাত্র!

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি চিটাইংগে টিভি নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলের একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে প্র্যাংক কলের কথোপকথনে (রসিকতামূলক আলাপ) বারবার বলা হয়, ‘আসকে (আজকে) আমার মন ভালো নেই’। মূলত সেখান থেকেই এই ভাইরাল বাক্য/লাইনের উৎপত্তি।

কাজী হান্নান আহমেদ উৎস নামে এক যুবক চিটাইংগে টিভি নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজে সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্র্যাংক কলের কথোপকথন আপলোড করে থাকেন। গত ১৪ জুন ‘আজকে আমার মন ভালো নেই’ শিরোনামে তিনি একটি ভিডিও আপলোড করেন। ৩ মিনিট ১ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে তিনি লেখেন ‘শুধু মাত্র বিনোদনের জন্য এই কলটি করা। কেউ আশা করি কোনো কারণে কষ্ট নিবেননা। চিটাইংগে টিভির সাথেই থাকবেন, ধন্যবাদ।’

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দুটি কুকুরের কথোপকথন তুলে ধরা হয়েছে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায়। প্র্যাংক কলের এই ভিডিও ক্লিপে একপাশে থেকে বারবার বলা হচ্ছিলো ‘আসকে আমার মন ভালো নেই’। অর্থাৎ মজাদারভাবে এই উপস্থাপন করায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেটি অনেকেই পছন্দ করেছেন। এরপর এই বাক্যটি নিয়ে অনেকেই ফেসবুকে পোস্ট দিতে শুরু করেছেন। এটি নিয়ে ইউটিউব, ফেসবুক, টিকটকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রতিদিন হাজারো মিম তৈরি করা হচ্ছে। কার্টুন এঁকেছেন তরুণ ও জনপ্রিয় কার্টুনিস্ট মেহেদী হকও।

প্র্যাংক কল কী?
প্র্যাংক কল বলতে আমরা সাধারণত বুঝি অপরিচিত একজনকে ফোন দিয়ে বিভিন্নভাবে রসিকতা করা। এটি করা হয়ে থাকে গোপনে যেন কাঙ্খিত ব্যক্তিটি তার পরিচয়টি না পায়। এর জন্য অনেকে বিভিন্ন রকমের অ্যাপস ইউজ করে থাকে কিন্তু সেই সকল অ্যাপসে শুধুমাত্র ভয়েস চেঞ্জ করে কল করা যায়। তবে চিটাইংগে টিভিতে কাজী হান্নান আহমেদ উৎস নামে ওই যুবক কোন অ্যাপস ছাড়াই নিজে নিজের ভয়েস চেঞ্জ করে অপরিচিত (অপরপ্রান্তে) একজনকে ফোন দিয়ে বিভিন্নভাবে রসিকতা করে থাকেন।

প্র্যাংক ভিডিও কী?
ইউটিউবে জনপ্রিয়তা পাওয়া বিভিন্ন ভিডিওর মধ্যে একটি বড় অংশই প্র্যাংক ভিডিও। তবে এসব ভিডিও বিভিন্ন সময় মানুষের জন্য ক্ষতির কারণও হয়ে দাঁড়ায়। নানা দিক বিবেচনায় ২০১৯ সালের দিকে কিছু প্র্যাংক ভিডিও নিষিদ্ধের ঘোষণা দিয়েছিল ইউটিউব।

সে সময় সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, “বিপজ্জনক কিংবা মানসিক ক্ষতির কারণ হতে পারে, এমন প্র্যাংক ভিডিওই মূলত নিষিদ্ধ করা হচ্ছে প্ল্যাটফর্মটিতে। এছাড়া বিভিন্ন সময় ইউটিউব কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা চ্যালেঞ্জের ট্রেন্ডও দেখা যায়। এই চ্যালেঞ্জের সূত্র ধরেই এমন সিদ্ধান্তে এসেছে ইউটিউব।”

এর আগে ২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যে নিজের প্রেমিকের মৃতদেহের একটি প্র্যাংক ভিডিও প্রকাশের দায়ে তার ৬ মাসের কারাদ্ল হয়েছিল। এ দম্পতির প্রত্যাশা ছিল এই প্র্যাংক ভিডিও দিয়ে রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে যাবেন তারা। এছাড়া সমপ্রতি একটি চ্যালেঞ্জ সংক্রান্ত ভিডিও বেশ আলোচনায় এসেছে। এটি হলো নেটফ্লিক্সের বার্ডবক্স শো’র আদলে চোখ বেধে গাড়ি চালানো। এরই মধ্যে এই চ্যালেঞ্জ সম্পন্ন করতে গিয়ে এক ব্যক্তি দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন বলে তখন জানা গিয়েছিল।


x

সর্বশেষ সংবাদ