নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হলো সফটওয়্যার ফ্রিডম ডে

করোনা
পালিত হলো সফটওয়্যার ফ্রিডম ডে   © টিডিসি ছবি

প্রতি বছর সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় শনিবার বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে জাকজমকভাবে পালিত হয় সফটওয়্যার ফ্রীডম ডে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল ১৮ সেপ্টেম্বর তারিখে বাংলাদেশেও নানা আয়োজনের মাধ্যমে এই দিনটি পালন করেছে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক।

২০০৪ সাল থেকে নিয়মিতভাবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকরা এই দিবসটি পালন করে আসছে। ওই সালেই প্রথমবারের মত সফটওয়্যার ফ্রীডম ডে উদযাপন করা হয় যার মাধ্যমে মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলনকে সমর্থন করে এমন অসংখ্য প্রযুক্তিপ্রেমী এতে যুক্ত হয়। ২০০৬ সালের পর থেকে প্রতিবছর সেপ্টেম্বরের ৩য় শনিবার এই দিনটি নিয়মিত বিশ্বব্যাপী উদযাপন করা হয়। বাংলাদেশেও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) দিবসটি পালন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারও সফটওয়ার ফ্রীডম আন্দোলনের গুরুত্ব ও অবদান তুলে ধরতে বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হয়েছে। আজ বিডিওএসএনের কার্যালয়ে কেক কাটা হয়। পরে অনুষ্ঠিত হয় মুক্ত আড্ডা।

মুক্ত আড্ডার পাশাপাশি এছাড়া এ দিনটি নিয়ে মুক্ত সফটওয়্যার বিষয়ক মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এ আলোচনায় অংশ নেন বিডিওএসএনের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাসির খান সৈকত এবং সমন্বয়ক মোশারফ হোসেন টিপু। আলোচনায় অংশ নিয়ে মুনির হাসান বলেন, 'মুক্ত দর্শন বা ওপেন সোর্স কমিউনিটিতে কাজ করলে হৃদয় প্রসারিত হয়, মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াতে শেখা যায় ও বিশ্বমানবতার জন্য কাজ করা যায়।'

অনুষ্ঠানে বিডিওএসএনের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান, চাকরি খুজব না দেব গ্রুপের সমন্বয়ক প্রমি নাহিদসহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার হল এমন সফটওয়্যার যা ব্যবহারকারির স্বাধীনতাকে সম্মান করে এবং এর সোর্স কোড উন্মুক্ত করে। ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহারকারীদের এটি ব্যবহার, গবেষণা, সোর্স কোড পরিবর্তন, পরিবর্ধনসহ সফটওয়ারটির যেকোন ধরনের উন্নয়ন করার স্বাধীনতা দেয়। যার ফলে সাধারণ এবং বাণিজ্যিক ব্যবহারকরীরা সহজেই এর উপযোগীতা উপলব্ধি করতে পারে। ১৯৮৩ সালে রিচার্ড স্টলম্যান প্রথম মুক্ত সফটওয়্যার আন্দোলন শুরু করেন যা কম্পিউটার ব্যবহারকরীদের সফটওয়্যার স্বাধীনতা দিতে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

 

 


মন্তব্য