বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডার

পৌনে তিন বছর ধরে বন্ধ সহকারী-সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি

পদোন্নতি
মাউশি  © ফাইল ছবি

প্রায় পৌনে তিন বছর ধরে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক এবং সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি বন্ধ রয়েছে। এতে করে পদোন্নতি আটকে থাকা কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভ ও হত্যাশা বাড়ছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সর্বশেষ ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে প্রভাষক থেকে সহকারী অধ্যাপক এবং প্রায় কাছাকাছি সময়ে সহকারী অধ্যাপক থেকে সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছিল। তারপর এই দুই পদে আর কোনো পদোন্নতি দেওয়া হয়নি। তবে গত বছরের জুলাই মাসে শিক্ষা ক্যাডারের ৬০৯ জন কর্মকর্তাকে সহযোগী অধ্যাপক পদ থেকে পদোন্নতি দিয়ে অধ্যাপক করা হয়।

জানা গেছে, পদোন্নতি না হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে একই পদে আছেন শিক্ষা ক্যাডারের অনেক কর্মকর্তা। পুলিশ, প্রশাসনসহ অন্যান্য কিছু পদে নিয়মিত পদোন্নতি হলেও তাদের না হওয়ায় হত্যাশা ও ক্ষোভ কাজ করছে। তারা বিসিএসের ব্যাচভিত্তিক পদোন্নতি চান। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর লিখিত আবেদনও করেছেন শিক্ষা ক্যাডারের কিছু কর্মকর্তা।

মাউশি সূত্রে জানা গেছে, সংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে বেশি নিয়োগ পাওয়া শিক্ষা ক্যাডারে বর্তমানে প্রায় সাড়ে ১৫ হাজার পদ রয়েছে। তাদের মধ্যে কর্মরত রয়েছেন ১৩ হাজারের বেশি। তাদের অধিকাংশ কর্মকর্তা সরকারি কলেজে শিক্ষকতা করলেও কিছুসংখ্যক কর্মকর্তা মাউশি, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডসহ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত আছেন।

শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের তদারকি করে মাউশি। আটকে থাকা পদোন্নতি বিষয়ে মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ গোলাম ফারুক বলেন, পদোন্নতির তালিকা প্রস্তুত করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বাকিটা মন্ত্রণালয়ের কাজ।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন জানান, সহযোগী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দিতে গত রমজান মাস থেকে কাজ করছে কমিটি। তাদের পদোন্নতির পর সহকারী অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়ার কাজ শুরু হবে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ