ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

নারী ধর্ষণ
সুজন কুমার ঘোষ  © ফাইল ছবি

বগুড়ার সোনাতলায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন কুমার ঘোষকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সেই সঙ্গে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় সোনাতলা উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। 

বুধবার (১০ আগস্ট) বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয়, সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের নীতি আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজে জড়িত থাকায় সোনাতলা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন কুমার ঘোষকে বহিষ্কার করা হল। সেই সঙ্গে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় সোনাতলা উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ করেন এক গৃহবধূ (৩০)। গতকাল মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে সোনাতলা থানায় একটি মামলা করেন।

ঘটনার বর্ণনায় ওই গৃহবধূ বলেন, ‘৩ বছর পূর্বে একই এলাকার অন্য এক নারীর কাছে সেলাইয়ের কাজ শিখতে যেতাম। একদিন দুপুরে কাজ শিখতে গেলে ঘরের দরজা ভেতর থেকে আটকানো দেখি। অনেক ডাকাডাকি করলেও কোনো সাড়া না পেয়ে দরজা ধাক্কা দিলে দেখি সুজন এবং ওই নারী অন্তরঙ্গ অবস্থায় আছেন। বিষয়টি দেখে ফেললে ওই নারী ও সুজন আমাকে ঘটনাটি বলতে নিষেধ করে। কথা বলার এক পর্যায়ে ওই নারী আমাকে ধাক্কা দিয়ে ঘরের ভেতর ঢুকে দিয়ে বাহির থেকে দরজা লাগিয়ে দিলে সুজন আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় সুজন এবং ওই নারী আমাকে বলেন- এই ঘটনা কাউকে বললে তোর স্বামী ও সন্তানকে মেরে ফেলব। এরপর থেকে দুই-চারদিন পরপর বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে গত তিন বছর ধরে আমাকে ধর্ষণ করেই চলে সুজন। কোনো সময় আপত্তি করলে আমার ননদকে ধর্ষণ করবে বলে ভয় দেখায়। এক পর্যায়ে অতিষ্ট হয়ে বিষয়টি আমার স্বামীকে জানাই এবং তার কথা মতোই সুজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করি।’


x

সর্বশেষ সংবাদ