নারী অধ্যক্ষের সঙ্গে মারামারিতে জড়ালেন শিক্ষকেরা, আহত ৩

মারামারিতে জড়িয়েছেন অধ্যক্ষ ও শিক্ষকেরা
মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে মারামারিতে জড়িয়েছেন অধ্যক্ষ ও শিক্ষকেরা  © প্রতীকী ছবি

বগুড়ার গাবতলী উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজে মারামারিতে জড়িয়েছেন অধ্যক্ষ ও শিক্ষকেরা। পরে অধ্যক্ষ ও সভাপতির কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন তারা। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন তিনজন। এ নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে থানায়। 

জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসাবে খাজা নাজিম উদ্দীন খাজা দায়িত্ব পালন করে আসছেন। প্রথমে অধ্যক্ষ ছিলেন মো. আশাফুদ্দৌলা রুবেল। পরে তাকে অপসারণ করে সভাপতির মেয়ে মোছা. রোজিনা আকতার নাইসকে অধ্যক্ষ করা হয়। শুরু থেকে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ভাতা বা সম্মানি দেয়া হয়নি।

শিক্ষকদের অভিযোগ, সভাপতি তাদের চাকরি দেয়ার নামে ৪ থেকে ৬ লাখ করে টাকা নিয়েছেন। প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত না হওয়ায় কোনো বেতনভাতা পান না শিক্ষকেরা। এ নিয়ে একাধিকবার ইউএনও, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যাসহ থানায় নালিশ দিয়েছেন তারা। 

এর পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার (২৫ জুন) দুপুরে অধ্যক্ষের কাছে বেতন চাইতে গেলে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। অধ্যক্ষ রোজিনা আক্তারের সঙ্গে শিক্ষকদের মারামারির ঘটনাও ঘটে। এ সময় ক্ষুদ্ধ শিক্ষকরা অধ্যক্ষ ও সভাপতির কক্ষে তালা লাগিয়ে দেন।

আরো পড়ুন: পুলিশের সামনে অধ্যক্ষের গলায় জুতার মালা, ফেসবুকে প্রতিবাদ-সমালোচনা

এতে মারামারিতে শিক্ষিক নাজমুন নাহার, হাবিব হাসান বিবেক ও অধ্যক্ষ আহত হয় বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় অধ্যক্ষ ও সভাপতি খাজা নাজিম উদ্দীন এবং আহত শিক্ষক নাজমুন নাহার ও হাবিব হাসান বিবেক থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

গাবতলী মডেল থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, উভয় পক্ষ থানায় মৌখিকভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।


x

সর্বশেষ সংবাদ