পড়া না পারায় মাদ্রাসাছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক 

খাঁ
ভুক্তভোগী মাদ্রাসাছাত্র   © সংগৃহীত

লক্ষ্মীপুরে পড়া না পারায় এক মাদ্রাসাছাত্রকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ দুজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।  

সোমবার (২ মে) লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, রোববার ওই ছাত্রের বাবা মো. ইব্রাহিম এ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। 

অভিযুক্ত ব্যক্তিরা হলেন- লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের বাঞ্চানগরের আল মুঈন ইসলামি একাডেমীর অধ্যক্ষ বশির আহম্মদ ও আবাসিক শিক্ষক আজিম মাহফুজ।

অভিযোগ বরাতে পুলিশ জানিয়েছে, নহিমুল ইসলাম ওই মাদ্রাসার হেফজ বিভাগের ছাত্র ও সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের রমারখিল গ্রামে মো. ইব্রাহিমের ছেলে। গত ১০ এপ্রিল আবাসিক শিক্ষক মাহফুজ তাকে পড়া দিতে বলেন। পরে পড়া না পারায় শিক্ষক মাহফুজ তাকে লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি পেটায়। এতে তার পিঠ ও হাতসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ফেটে রক্তাক্ত জখম হয়।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, এতে নহিমুল অসুস্থ হয়ে পড়ে। তবে এ খবর তার বাড়িতে খবর দেওয়া হয়নি। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) ঈদের ছুটিতে বাড়িতে আসে নহিমুল। বাড়িতে এসে পাঞ্জাবি খুলে পিঠ ও হাতে আঘাতের চিহ্ন দেখিয়ে বিষয়টি সবাইকে জানায় নহিমুল।

নহিমুল ইসলাম জানান, পড়া জিজ্ঞেস করা হয়েছিল। আমি পারিনি। এজন্য লাঠি দিয়ে অনেক মেরেছে। যন্ত্রণায় রাতে ঘুমাতে পারিনি। বাড়িতে বললে আবারও মারধর করবেন বলে হুমকি দিয়েছেন।

ছাত্রের বাবা মো. ইব্রাহিম জানান, ছেলের শরীরের আঘাতের চিহ্ন দেখে চোখে পানি চলে এসেছে। আগেও ছেলেকে মেরেছে। তখন সতর্ক করেছিলাম। তারা শোনেননি। এ ঘটনার বিচার চাই। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক আজিম মাহফুজ জানান, ঘটনাটি সমাধান হয়েছে। তবে সমাধান কী হয়েছে, তা জানতে চাইলে তিনি কোনো সদুত্তর দেননি।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


x