শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ফুলে গেছে মাদ্রাসাছাত্রের শরীর

মাদ্রাসাছাত্র
ভুক্তভোগী ছাত্র সাব্বির  © সংগৃহীত ছবি

খুলনার রূপসায় সাব্বির (১১) নামের এক মাদ্রাসাছাত্রকে বেধড়ক মারপিট করে গুরুতর জখম করেছে এক শিক্ষক। এতে নির্যাতনে আহত ওই শিক্ষার্থীর শরীর ফুলে গেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রের মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে বহিষ্কার করেছে মাদ্রাসা কর্তপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) রূপসা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী রূপসার ঘাটভোগ ইউনিয়নের আনন্দনগর মেঝোঝিলার মো. রইজ শেখের ছেলে। তিন সন্তানের মধ্যে সবার ছোট সাব্বির। সে শ্রীফলতলা গ্রামের মোহাম্মাদিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসায় গত ৩ বছর যাবৎ হেফজ শাখায় লেখাপড়া করছিলেন।

আরও পড়ুন: শাবিপ্রবি উপাচার্যকে সরানো হচ্ছে

উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক জানায়, অধিক প্রহারে ওই ছাত্রের শরীরে গুরুতর জটিলতা দেখা দিয়েছে। দ্রুত তার কিডনি পরীক্ষা করাতে হবে।

সাব্বিরের চাচা শেখ অসিকুর রহমান জানান, দুষ্টুমির অভিযোগ এনে নির্মমভাবে আমার ভাতিজাকে পিটিয়েছে ওই শিক্ষক। প্রায় দুই ঘণ্টা সে অজ্ঞান ছিল। হাতে, পিঠে ও শরীরের বিভিন্ন অংশে ৪০টি বেত্রাঘাত রয়েছে। প্রতিটি আঘাতের স্থানে রক্ত জমাট বেঁধে আছে। দ্রুত অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

আরও পড়ুন: বিএমডিসির অধীনে হচ্ছে না এবারের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা

ওই শিক্ষার্থীর মা লিপি বেগম জানান, আমার ছেলেকে নির্মমভাবে মারপিট করে আহত করা হয়েছে। অভিযুক্ত শিক্ষক এবং বিষয়টি গোপন রাখতে একটি কক্ষে সাব্বিরকে আটকে রেখে ভীতি প্রদর্শন করেন। পরে ২৩ জানুয়ারি ঘুমানোর সময় সাব্বির রহমান মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়িতে আসলে আমরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। তার কিডনি পরীক্ষার জন্য চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়েছেন। ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

এ বিষয়ে মাদ্রাসা সুপার হাফেজ আবু বকর সিদ্দিক বলেন, বিষয়টি জানাজানি হলে মাদ্রাসা পরিচালনা পরিষদ ওই শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে।


x

সর্বশেষ সংবাদ