কিশোর গ্যাংয়ের দুইটি গ্রুপের ১০ সদস্য গ্রেপ্তার

কিশোর গ্যাং
কিশোর গ্যাংয়ের গ্রেপ্তারকৃত ১০ সদস্য  © সংগৃহীত

রাজধানীর শ্যামপুর এলাকা থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাং ‘সেভেন স্টার’ ও ‘রবিন হুড’ গ্রুপের ১০ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

আজ শনিবার (১৯ জুন) দুপুরে র‍্যাব-১০ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি এনায়েত কবীর সোয়েব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  

গতকাল শুক্রবার রাতে রাজধানীর শ্যামপুর থানাধীন ধোলাইপাড় গীত সংগীত সিনেমা হল এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাব-১০ এর একটি দল। এসময় দেশীয় অস্ত্রসহ স্থানীয় কিশোর গ্যাং ‘সেভেন স্টার’ ও ‘রবিন হুড’এর ১০ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন— রাব্বী আহমেদ, নাঈম আহমেদ, আকাশ, নয়ন হাওলাদার, ইমন, সৈকত শেখ,  তুষার হাওলাদার, রবিউল ইসলাম, আরিফ ও হাসান।

এসময় তাদের কাছ থেকে ছয়টি সুইচ গিয়ার চাকু, তিনটি ছুরি, ৮টি মোবাইল ফোন ও নগদ ১ হাজার ৭৫০ টাকা জব্দ করা হয়।

এএসপি এনায়েত কবীর সোয়েব বলেন, স্থানীয় কিশোর গ্যাং সেভেন স্টার ও রবিন হুড গ্রুপের সদস্য। বিভিন্ন জনবিরল এমনকি জনসমাগমপূর্ণ স্থানেও তারা একাকী পথচারীদের আকস্মিকভাবে ঘিরে ধরে। এরপর আশেপাশে কেউ বুঝে ওঠার আগেই অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোর করে মানিব্যাগ, টাকা-পয়সা, স্বর্ণালংকার, মোবাইল ফোন ও ল্যাপটপ ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যেত।

র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে কিশোর অপরাধীরা স্বীকার করেছে, তারা ডাকাতি ও ছিনতাই ছাড়াও মাদকসেবন, খুচরা মাদকের ব্যবসা, চাঁদাবাজি, ইভটিজিং, পাড়ায়-মহল্লায় মারামারি এবং স্থানীয় ভূমিদস্যুদের পক্ষে অপদখলীয় জমিতে গিয়ে পেশিশক্তির মহড়া প্রদর্শনসহ নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। প্রায়ই তারা এলাকায় প্রভাব বিস্তারের চেষ্টার জন্য দলবদ্ধ হয়ে সংঘাত সৃষ্টি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করে।

এছাড়া তারা ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে ও হানিফ ফ্লাইওভারের ওপর বিভিন্ন সময়ে যানবাহন থামিয়ে সাধারণ মানুষের চলাচলে ব্যাপক সমস্যা সৃষ্টিসহ ছিনতাই, রাহাজানি ইত্যাদির সঙ্গে জড়িত ছিল বলে প্রাথমিকভাবে জানা যায়।

আটকদের বিরুদ্ধে বংশাল থানায় নিয়মিত মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

আরও দেখুন: বেপরোয়া কিশোর গ্যাং, করোনাকালেই খুন অর্ধ শতাধিক


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ