পাঁচ কিশোরকে প্রকাশ্যে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

পাঁচ কিশোরকে একসঙ্গে বেঁধে নির্যাতন
পাঁচ কিশোরকে একসঙ্গে বেঁধে নির্যাতন

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার চরকিং ইউনিয়নের জেলে পাড়ায় মাছ ধরার জাল চুরির অপরাধে পাঁচ কিশোরকে একসঙ্গে বেঁধে প্রকাশ্যে নির্যাতন করেছে স্থানীয় পঞ্চায়েত। এসময় ওই জেলেদের ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়। রবিবার (১৬ মে) সকাল ১০টার দিকে দক্ষিণ শুল্লকিয়া গ্রামে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

পরে বিকেলে এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে, যা দ্রুত সময়ের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।

এক মিনিট ১১ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, কিশোর জেলেদের প্রকাশ্যে বেঁধে লাঠি দিয়ে নির্যাতন করছেন একজন। পাশ থেকে তাদের পরিবারের নারী সদস্যরা কান্না করে তাদের ছেড়ে দেওয়ার আকুতি জানাচ্ছেন। কান্নারত নারীরা এগিয়ে আসলে তাদেরও ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দিতে দেখা গেছে।

নির্যাতনের শিকার এক কিশোর জেলের বাবা জানান, তার ছেলেসহ পাঁচজন কিশোর জেলে ১০-১১ হাতের একটি বিন্দিজাল নিয়ে যায়। পরে ওই জাল উদ্ধার করে মালিককে দিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সকালে স্থানীয় পঞ্চায়েত শ্রীহরি জল দাশ, নেপাল দাস, প্রিয় লাল, রাশ মহন ও স্থানীয় চৌকিদার আমির হোসেন মিলে কিশোর জেলেদের ডেকে পাঠায়। এক পর্যায়ে প্রকাশ্যে তাদেরকে বেঁধে লাঠি দিয়ে নির্যাতন করা হয় এবং প্রত্যেকের ২ হাজার টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করে তারা।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত চৌকিদারসহ অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, খবর পেয়ে বিকেলে নির্যাতনের শিকার কিশোরদের সঙ্গে কথা হয়েছে। অভিযুক্তদের আটক করতে অভিযান চালানো হচ্ছে।


মন্তব্য