আগে মৃত্যু সংবাদ, পরে চাকরির— দুটোই একদিনে

আকস্মিক মৃত্যু
নিহত জুয়েল রানা ও তার নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র, ফল  © সংগৃহীত

একটি চাকরির খুবই দরকার, তাই সার্টিফিকেটের ফাইল হাতে ইন্টারভিউ দিতে ছুটছিলেন চাকরিপ্রার্থী মো. জুয়েল রানা (২৮)। কিন্তু নিয়তির নির্মম পরিহাস, বাসের চাপায় পথেই প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে ঢাকার কেরানীগঞ্জে উপজেলার চুনকুটিয়া চৌরাস্তা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। একটি ব্যাংকের চাকরির ভাইভা দেওয়ার জন্য বাসা থেকে বের হয়ে সড়ক পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। 

আর ঘটনার দিনই জুয়েল পেয়েছিলেন আরেকটা (সরকারি) চাকরি। কিন্তু সে শেষ পর্যন্ত জেনে যেতে পারেনি। এদিন চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত হয়েছিল স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের হিসাব সহকারী পদের নিয়োগের। তালিকায় জুয়েল রোল নম্বরও (১০৫৬৪৯) ছিল।

জানা যায়, নিহত জুয়েল শুভাঢ্যা উত্তর পাড়ার মো. বাবুল মিয়ার ছেলে। তিনি বাড়ি থেকে চাকরির ইন্টারভিউ দিতে বের হয়েছিলেন বলে জানান তার শিক্ষক মো. সোহেল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জুয়েল সকালে দ্রুত রাস্তা পার হওয়ার সময় হোঁচট খেয়ে পড়ে যান। এ অবস্থায় মাওয়া থেকে গুলিস্তানগামী স্বাধীন পরিবহনের একটি বাস তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনি নিহত হন।

খবর পেয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

জুয়েলের শিক্ষক মো. সোহেল বলেন, জুয়েল একটি ব্যাংকের চাকরির মৌখিক পরীক্ষা (ভাইভা) দিতে বাসা থেকে মতিঝিলের উদ্দেশে বের হন। চুনকুটিয়া চৌরাস্তা এলাকায় সড়ক পার হওয়ার সময় স্বাধীন পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

এদিকে, তার মৃত্যুর দিনই চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত হয়েছিল স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের হিসাব সহকারী পদের নিয়োগের। ২১৮ জনকে নিয়োগ দিয়ে অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে এই ফল প্রকাশ করা হয়। নিয়োগের এই তালিকায় জুয়েল রোল নম্বরও (১০৫৬৪৯) ছিল।


মন্তব্য