৩২ আন্দোলনে পুলিশের লাঠিচার্জ, আটকের অভিযোগ

শাহবাগে ৩২ আন্দোলনকারীদের সমাবেশ
শাহবাগে ৩২ আন্দোলনকারীদের সমাবেশ  © টিডিসি ফটো

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ বছর করার দাবিতে রাজধানীর শাহবাগের কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জের অভিযোগ করেছেন আন্দোলনকারীরা। ঘটনাস্থল থেকে বাকি বিল্লাহ নামে এক আন্দোলনকারীকেও ধরে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তাদের। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি অংশ হিসাবে আজ শুক্রবার (১১ জুন) বিকেলে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনের কর্মসূচিতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ৩২ আন্দোলনের নেতা ঊনমানুষ সেতু দ্যা ডেইলি ক্যাম্পসকে এসব কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, জাদুঘরের সামনে আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চলছিল। আমরা পুলিশকে বলেছি, আমরা শাহবাগে বসবো না। শাহবাগ থানার সামনে দিয়ে আন্দোলনকারীরা রাজুতে চলে যাবে। এসময় আমরা থানার সামনে তাদের ধন্যবাদ জানাতে কিছুক্ষণ অবস্থান নেই। এর মধ্যে থানার ভেতর থেকে একজন কর্মকর্তা এসে বাকি বিল্লাহ নামে আমাদের এক শিক্ষার্থীকে ধরে নিয়ে যায় এবং মারধর করে।

ঊনমানুষ বলেন, আমরা এখন রাজু ভাস্কর্য থেকে ঢাকা প্রেসক্লাবে গিয়ে এ ঘটনার প্রতিবাদ সংবাদ সম্মেলন করবো। এখান থেকে আমরা আমাদের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

এর আগে, এদিন দুপুর থেকে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে আন্দোলনকারীরা। বৃষ্টির মধ্যেও তাদের কর্মসূচি চালিয়ে যেতে দেখা গেছে। আন্দোলনকারীদের একজন বলেন, আমরা আমাদের কর্মসূচি শেষ করে শাহবাগ থানার সামনে দিয়ে রাজু ভাস্কর্যের দিকে আসছিলাম। এ সময় পুলিশ বিনা উস্কানিতে আমাদের ওপর লাঠিচার্জ করে।

ঘটনার বিষয়ে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন অর রশীদ দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, গ্রেফতার বা আটক নয়, আন্দোলন থেকে দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। কীসের আন্দোলন বা কেন এই আন্দোলন এটা নিয়েই তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

মামুনুর রশীদ আরও বলেন, আন্দোলনকারীদের রাজু ভাস্কর্যে যাওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু তাদের থানার সামনে দাঁড়ানোর কোন অনুমতি তাদের ছিলো না। তাই তাদের সরিয়ে দেওয়া হয়েছ।

এদিকে, শাহবাগের এলাকার বর্তমান পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ইমদাদ জানান, আন্দোলনকারীরা শাহবাগ থানার সামনে অবস্থান নিলে পুলিশ তাদের ধাওয়া করে। এসময় তাদের বিক্ষোভ মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। পরে আন্দোলনকারীরা রাজু ভাস্কর্যে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের কথা জানিয়েছেন।


মন্তব্য