বিস্ময় বালক তাক লাগিয়েছে বিশ্বকে

১০ বছর বয়সেই মহাকাশ বিজ্ঞানের উপর বই

বালক
মায়ের সঙ্গে রেয়াংশ  © সংগৃহীত

ভারতের কলকাতার বিস্ময় বালক রেয়াংশ দাস। মাত্র ১০ বছর বয়সেই সে অ্যাস্ট্রোফিজিক্সের উপর বই লিখে ফেলেছে। তার এই প্রতিভা দেখে হতবাক গোটা বিশ্ব।

বইটির নাম, ‘ The Universe: The Past, The Present and the Future’। বিজ্ঞান ও জ্যোতির্বিজ্ঞানের নানা রহস্য তুলে ধরা হয়েছে এই বইটিতে।

বইটিতে উল্লেখ করা হয়েছে, একটি তারা সেটি পৃথিবীর চেয়ে বয়সে বড় হতে পারে। বিগ ব্যাং থিওরি যেখানে উল্লেখ করা হচ্ছে একাধিক ইউনিভার্স থাকতে পারে। তারার জীবন চক্র, সৌর জগৎ,ডার্ক ম্যাটার. ডার্ক এনার্জি সহ নানা বিষয়ে আলো ফেলেছে ছোট্ট রেয়াংশ। 

গবেষক নন্দিতা রাহা জানিয়েছেন, ‘মহাবিশ্ব সম্পর্কে রেয়াংশের ধারণা অত্যন্ত পরিষ্কার।’ আসলে সেই ৫ বছর বয়স থেকেই আকাশের তারা, নক্ষত্র, এই বিশ্বের বাইরেও কী আছে এসব নিয়ে রেয়াংশের আগ্রহ গড়ে ওঠে। রেয়াংশ বলে, ‘আমি রাতের আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকতাম। আর ভাবতাম এই যে আলোকবিন্দু এগুলি আসলে কী? কীভাবে এগুলি তৈরি হয়? কেন আমি এখানে এসেছি?’ এসবের উত্তর পেতে সে জ্যোতির্বিজ্ঞানের উপর নানা বই পড়তে শুরু করে। 

তার মা সোহিনী রাউথ জানিয়েছেন, ‘প্রথমে সে ট্যাব নিয়ে খেলত। এরপর অ্য়াস্ট্রোনমি ও অ্য়াস্ট্রোফিজিক্সের উপর নানা ভিডিও দেখা শুরু করে। ৫ বছর বয়স থেকেই ফিজিক্সের নানা থিওরি সে বলতে শুরু করে। বিশেষজ্ঞদের কাছেও নিয়ে গিয়েছি। তাঁরা জানিয়েছেন রেয়াংশ যা বলছে তা সঠিক।’

একটি এনজিওতে চাকরি করেন সোহিনী। কার্যত একলা হাতেই রেয়াংশকে বড় করছেন তিনি। তার ভাই সপ্তর্ষি রাউথও সহায়তা করেন। মামার সঙ্গেও নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করে রেয়াংশ। 

সূত্র: হিন্দুস্থান টাইমস বাংলা


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ