বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছুর কাছে ‘২০ নম্বর পাবে’ গুচ্ছ কমিটি

ভর্তি পরীক্ষা
বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা  © ফাইল ছবি

গুচ্ছভুক্ত ২২টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে বৃহস্পতিবার। এতে ৫৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। ঘোষিত ফলাফলে দেখা গেছে, ভর্তিচ্ছুরা সর্বনিম্ন নম্বর পেয়েছেন মাইনাস ২০।

অর্থাৎ তারা এক নম্বরও পাননি। বরং ভুল উত্তর দেওয়ার কারণে তাদের নম্বর মাইনাস ২০ এ চলে গেছে। এ ফলাফল দেখে একজন মজা করে বলছিলেন, তাদের কাছে গুচ্ছ ভর্তি কমিটি ২০ নম্বর পাবে। অবশ্য কীভাবে এ নম্বর ফেরত দেবে সে ধারণা তিনি দেননি। সর্বনিম্ন নম্বর কতজন পেয়েছেন তা জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় এই ইউনিটে সারাদেশ থেকে অংশ নেয় ১ লাখ ৫৩ হাজার ৮৪৪ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ৬৬ হাজার ৭১১ জন শিক্ষার্থী সমন্বিত এ ভর্তি পরীক্ষায় ৩০ এর নিচে নম্বর পেয়ে অকৃতকার্য হয়েছে। এবারের গুচ্ছে সর্বনিম্ন নম্বর হলো -২০। আর সবোর্চ্চ নম্বর ৮৭.৫০। এ নম্বর পেয়ে প্রথম হয়েছেন দুই শিক্ষার্থী। তাদের দু’জনেরই নাম সুমাইয়া।

প্রকাশিত ফলাফলের তথ্য অনুযায়ী, ‘ক’ ইউনিটে ৮৭ দশমিক ৫০ পেয়ে প্রথম হয়েছেন দুইজন। একজনের নাম সুমাইয়া রহমান। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিলেন। যৌথভাবে প্রথম হওয়া আরেক শিক্ষার্থীর নাম সুমাইয়া বিনতে মাসুদ। তিনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছেন।

আরো পড়ুন: কোটা ছাড়াই গুচ্ছে উত্তীর্ণ তামান্না কত নম্বর পেলেন

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বিকাল ৪টার পর ফল প্রকাশিত হয়। এদিন বিকালে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত টেকনিক্যাল কমিটির আহবায়ক এবং চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.  নাছিম আখতার এ সব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। গত শনিবার (৩০ জুলাই) বেলা ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত সারাদেশের ১৯ কেন্দ্রের ৫৭টি ভেন্যুতে একযোগে গুচ্ছের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। 

গুচ্ছভুক্ত ২২টি বিশ্ববিদ্যালয় হলো, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় (নেত্রকোনা), বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (গোপালগঞ্জ), কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয় (কিশোরগঞ্জ) এবং চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।প্রসঙ্গত, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছ ভর্তি পদ্ধতিতে অংশ নিলেও এবার নতুন যুক্ত হয়েছে কিশোরগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।


x

সর্বশেষ সংবাদ