‘কোথায় ভর্তি হবো নিশ্চিত না, তবে বুয়েটে সম্ভাবনা বেশি’

আবরার ফাইয়াজ
আবরার ফাইয়াজ  © সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েটসহ মোট ৫টি প্রতিষ্ঠানে চান্স পেয়েছেন আবরার ফাইয়াজের। তবে কোথায় ভর্তি হবেন— সে  ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত কিছু জানাননি তিনি।

এর আগে দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, বুয়েটে চান্স পেয়ে বেশি ভালো লাগছে। ইচ্ছা আছে ভর্তি হওয়ার। তবে পরিবারের সাথে কথা বলে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে চাই। তবে গতকাল সোমবার রাতের স্ট্যাটাসে বুয়েটের ভর্তি হওয়ার কথা অনেকটা নিশ্চিত করেছেন ফাইয়াজ।

স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, আলহামদুলিল্লাহ এই ৩ বছরের শেষে আল্লাহ হতাশ করেননি। বলা যায় আজকেই আমার ইন্টারমিডিয়েট এর পড়ালেখার জীবনটার আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটলো। ৫ জায়গায় ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছি। আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহ কোথাও একদম হতাশ করেননি।

MIST- 247th (ভর্তি হইনি)
Medical- 4410th( Not Allotted till Now)
IUT- 41st (Admitted into CSE)
Dhaka University- 44th
BUET- 450th (Mechanical Engineering)
 
ভাইয়া ৫ জায়গায় ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছিলো তাই আমিও ৫ জায়গাতেই দিয়েছি। আর কোথাও দেওয়ার ইচ্ছা নেই। CKRUET এ Apply করেছি কিন্তু পরীক্ষা দিব না।

স্ট্যাটাসে ফাইয়াজ লিখেন, কোথায় ভর্তি হবো এখনো নিশ্চিত না। তবে বুয়েটে হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। 

গত তিন বছরের সময় উল্লেখ করে ফাইয়াজ লিখেন, ১ জুলাই ২০১৯। আমাদের ইন্টারমিডিয়েট এর পথচলার শুরু, সম্পূর্ণ ৩ বছর আগে। তখন ভাবতেও পারিনি পরের ৩ বছরে ঠিক কী কী হতে যাচ্ছে। মাত্র ৩ মাস ঢাকা কলেজে থাকতে পেরেছিলাম।

ভাইয়া মারা যাওয়ার পর ফিরে আসলাম কুষ্টিয়ায়। তার ৪ মাস পর থেকে করোনা শুরু হলো বাংলাদেশে। প্রায় ৮-৯ মাস ঘরবন্দী থাকলাম। তারপর কিছুদিন করোনা ছিলো না। এর মধ্যে ২০২১ এর এপ্রিলে বড় ফুপা মারা যান। ঘরে বন্দী থাকতে থাকতে আমার ইমিউনিটি ও একদম দূর্বল হয়ে গেছিলো। ২১ এর জুলাইতে আমি আর আম্মু কোভিডে আক্রান্ত হই। এরপরে কিছুদিন সব ঠিক ছিলো।
 
কিন্তু হঠাৎ করেই দাদি অসুস্থ হয়ে পড়লেন। দাদির ক্যান্সার ধরা পড়লো। দাদিও একদম দ্রুত মারা গেলেন। তখন আমার এইচএসসির আর একমাস বাকি। তখন থেকেই আমারও বার বার অসুস্থ হওয়ার শুরু । গত ৬-৭ মাসে ১০+ বার ডাক্তার দেখিয়েছি। মনে হয় একশোরও বেশি প্রকারের ওষুধও খাওয়া লাগছে। আল্লাহর কাছে শুধু বলতাম অন্তত যেন পরীক্ষার দিনগুলো সুস্থ থাকতে পারি। আলহামদুলিল্লাহ তেমন কোনো বড় সমস্যা হয়নি।
 
গত ৩ বছর আসলে অনেক দীর্ঘ একটা সময় পেরিয়ে গেছে। যা যা ঘটেছে তার বেশিরভাগই আমার আশা ছিলো না। খুব দ্রুতই সব ঘটে গেছে। হঠাৎ করে নিজেকে সম্পূর্ণ এমন একটা জায়গায় আবিষ্কার করেছি যেখানে কখনো নিজেকে ভুলেও ভাবিনি।

ফাইয়াজের বক্তব্য, নিরাপত্তা কিংবা ভালোমন্দের মালিক আল্লাহ তায়ালা। সামনের দিনগুলো কেমন কাটবে জানি না। তবে আল্লাহ যেটা করবেন ভালোর জন্যই করবেন এটা আমি দৃঢ়ভাবে মেনে চলার চেষ্টা করি। পরবর্তী জীবনের পথগুলোও যেন তিনি সহজ করে দেন এটাই চাওয়া।


x

সর্বশেষ সংবাদ