১১টায় শুরু ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষা, হলের বাইরে অপেক্ষায় ভর্তিচ্ছুরা

১১টায় শুরু ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষা, হলের বাইরে অপেক্ষায় ভর্তিচ্ছুরা
পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে অপেক্ষা করছেন পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা  © টিডিসি ফটো

একটু পরেই শুরু হবে ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কলা অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তিযুদ্ধ। বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত চলবে এ পরীক্ষা। সকাল থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কেন্দ্রে ভীড় করেছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা পরীক্ষার্থীরা। তাদের সাথে এসেছেন অভিভাবকরাও। 

গাজীপুর থেকে আসা রুমেল হাসান জানান, ভালো একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারলে জীবনটা অন্যরকম হবে। সে অনুযায়ী ভালোই প্রস্তুতি নিয়েছি। প্রথম পরীক্ষা তো একটু নার্ভাস লাগছে। জানিনা কপালে কি আছে।

ফারিহা জান্নাত নামের আরেক পরীক্ষার্থী বলেন, পরীক্ষা দিতে এলে সব সময় একটা চাপ অনুভব করি। আর এটাতো জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা। ভালো একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারলে জীবনটা অন্যরকম হবে। তাই জানি না কি হয়।

ভিড় এড়াতে পরীক্ষার্থী ছাড়া অভিভাবক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ভর্তি পরীক্ষার দিনগুলোতে কেন্দ্রে না যেতে অনুরোধ করেছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কিন্তু পরীক্ষাকেন্দ্র ঘুরে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। কোন কোন শিক্ষার্থীর সাথে ৪-৫ জন অভিভাবক ও শুভাকাঙ্ক্ষী এসেছে। 

আরও পড়ুন: সিট দখলে নিতে ঢাবির পর চবিতে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, ভাঙচুর

পরীক্ষার্থীর সাথে আসা অভিভাবক নাজমা আক্তার বলেন, আমার মেয়ে পরীক্ষা দিবে। ওর চেয়ে চিন্তাটা আমার বেশি মনে হচ্ছে। দোয়া করি যেন ভালোভাবে পরীক্ষাটা শেষ করতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নিষেধ করলেও মনতো মানেনা। পরিবারের কেউ সাথে থাকলে তাদের মনোবলও বাড়ে। 

এবার ‘ক’ ইউনিটে এক হাজার ৮৫১টি আসনের বিপরীতে মোট আবেদনকারীর সংখ্যা এক লাখ ১৫ হাজার ৭১০ জন। সে হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন প্রায় ৬২ জন শিক্ষার্থী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের অধীনে রয়েছে ১০টি অনুষদ। এগুলো হলো—বিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, ফার্মেসি, আর্থ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদ, পরিসংখ্যান গবেষণা ও শিক্ষণ ইনস্টিটিউট, পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট, ইনস্টিটিউট অব লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি এবং শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট ইত্যাদি।

‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষায় এমসিকিউ এবং লিখিত বা বর্ণনামূলক প্রশ্ন থাকবে। ভর্তি পরীক্ষার মোট নম্বর ১০০। এর মধ্যে এমসিকিউ-এর জন্য ৬০ নম্বর এবং লিখিত বা বর্ণনামূলকের জন্য ৪০ নম্বর থাকবে।

এমসিকিউ-এর জন্য ৪৫ মিনিট এবং লিখিত বা বর্ণনামূলকের জন্য ৪৫ মিনিট থাকবে। এমসিকিউ অংশে প্রতি বিষয়ে মোট নম্বর থাকবে ১৫ করে, আর লিখিত অংশে প্রতি বিষয়ে মোট নম্বর থাকবে ১০ করে। এ ক্ষেত্রে প্রতিটি প্রশ্নের মান ২ থেকে ৫-এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে।


x

সর্বশেষ সংবাদ