স্কুলশিক্ষার্থীদের পরীক্ষামূলক টিকাদান: ‘নেয়ার পর থেকে ভয় ভয় লাগছে’

করোনা
টিকা নেয়া শিক্ষার্থীদের একাংশ  © ছবি : সংগৃহীত

আজ থেকে পরীক্ষামূলকভাবে শিশুদের করোনা টিকা প্রদান শুরু করেছে সরকার। আনুষ্ঠানিকভাবে বৃহস্পতিবার সকালে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সের শিক্ষার্থীদের মাঝে করোনা ভাইরাসের টিকা শুরু হয়েছে।

তবে শিক্ষার্থীরা টিকা নিয়ে কিছুটা ভীত সন্ত্রস্ত অবস্থায় রয়েছে। মানিকগঞ্জ বালিকা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণীর শিক্ষার্থী মিথিলা জানায়, টিকা নিতে ভয় ভয় লাগছে তারপরও করোনার হাত থেকে রক্ষা পেতে টিকা নিতে এসেছি। সব মিলিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে আসতে পারায় ভালই লাগছে।

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার চারটি স্কুলের ১২ থেকে ১৭ বয়সী ১২০ জন শিক্ষার্থীকে পরীক্ষামূলক করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. লুৎফর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সেই ধারাবাহিকতায় আজ বৃহস্পতিবার কর্ণেল মালেক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী উপস্থিত থেকে প্রাথমিকভাবে পরীক্ষামুলক এই টিকা দেয়ার কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। টিকা দেয়ার পর শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাসায় আগামী ১৪ দিন অবজারভেশনে রাখা হবে বলেও তিনি জানান।

জেলা শিক্ষা অফিসার রেবেকা জাহান, প্রাথমিকভাবে জেলার চারটি স্কুল থেকে নবম ও দশম শ্রেণির ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া হয়েছে। এ পর্যায়ে জেলা শহরের সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ জন সরকারী এস কে বালিকা বিদ্যালয়ের ৫০ জন, গড়পাড়া জাহিদ মালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ জন এবং আটিগ্রাম, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষার্থীদের ফাইজারের টিকা দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, দেশে এখন ১৮ বছরের বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়া হচ্ছে। ১৮ বছরের কম বয়সীদের টিকা দেওয়ার ব্যাপারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সরাসরি কোনো নির্দেশনা নেই।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ