গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা

বাদপড়া শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ চেয়ে অবস্থান কর্মসূচি (ভিডিও)

ভর্তি পরীক্ষা
ইউজিসির সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন  © টিডিসি ফটো

বাদপড়া শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগসহ তিন দফা দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন দেশের ২০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীরা।

আজ বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুুপুর দেড়টার দিকে তাদের এই কর্মসূচি শুরু হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা সেখানে অবস্থান করছেন।

তাদের ৩ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- গুচ্ছ সিলেকশন পদ্ধতি বাতিল, আসন সংখ্যা বৃদ্ধি এবং প্রাথমিক সিলেকশনে বাদপড়া শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ।

কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া এক ছাত্রী বলেন, ইউজিসিসহ ভর্তি পরীক্ষার সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্টরা একটি যোক্তিক সিদ্ধান্ত নেবেন বলে আমরা আশা করেছিলাম। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সেটি দেখলাম না। আমাদের দাবিটা আবেগ থেকে হতে পারে, কারণ আমরা ছোট। আমরাতো বিশ্ববিদ্যালয়ে সিট চাচ্ছিনা। আমরা শুধু ভর্তি পরীক্ষা বসতে চাচ্ছি। সে সুযোগটাও আমাদের দেওয়া হচ্ছে না।

কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, আটোপাশ উচ্চশিক্ষায় কোনো প্রভাব ফেলবে না। তাহলে আজকে কেনো আমাদের সাথে বৈষম্য করা হচ্ছে। কেনো আমাদের ভর্তি পরীক্ষার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। কেউ সুযোগ পাচ্ছেনা তার যোগ্যতাকে প্রমাণ করার অটোপাশের কারণে। আমরা এ অনিয়ম মানি না।

গুচ্ছের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো— জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।


মন্তব্য