জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা কি হবে, যা বলছে মন্ত্রণালয়

জেএসসি-পরীক্ষা না হওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন দায়িত্বশীলরা
করোনার কারণে চলতি বছরের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা নাও হতে পারে  © ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসের কারণে চলতি বছরের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা নাও হতে পারে বলে জানা গেছে। তবে এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরীক্ষা নেওয়ার বিষয়ে প্রস্তুতিও নেই বোর্ডগুলোর।

ইতিমধ্যে চলতি বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা হচ্ছে না বলে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ছাড়া পিইসির মতো ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (ইইসি) পরীক্ষাও না নেওয়ার চিন্তা চলছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেছেন, নভেম্বরে নেওয়া হয় জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা। অন্য বছর এ সময়ে রেজিস্ট্রেশন, ফর্ম পূরণসহ আনুষঙ্গিক কাজ করা হয়। প্রশ্নপত্র তৈরি ও মুদ্রণকাজ শুরু হয়। চলতি বছর এ নিয়ে মন্ত্রণালয়ের কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। ফলে বলা যায়, এবার নাও হতে পারে পরীক্ষাটি। এ নিয়ে প্রস্তুতি বলতে রেজিস্ট্রেশন করে রাখা হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ইতিমধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন, চলতি বছরের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা নাও হতে পারে। করোনার কারণে এ চার পরীক্ষা গত বছরও নেওয়া হয়নি।

গত ২৬ মে সংবাদ সম্মেলনে এ বছরের জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। পাশাপাশি তিনি বলেন, পরীক্ষা নেওয়ার মতো পরিস্থিতি হলে নেওয়া হবে। না হলে অ্যাসাইনমেন্টের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন হবে।

এদিকে পিইসি পরীক্ষা না নিয়ে এর পরিবর্তে ‘বাড়ির কাজ’ দিয়ে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের মাধ্যমে নতুন শ্রেণিতে তোলা হবে। অটোপাস দেওয়া হবে না এবার। সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে সম্মতি পেলে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। শিগগিরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এ সংক্রান্ত সারসংক্ষেপ পাঠানো হবে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ